রাজনীতি

বর্ধমান দক্ষিণ কেন্দ্রের গেরুয়া প্রার্থীর প্রচার

প্রসূন সামন্ত,

পূর্ব বর্ধমানে পঞ্চম দফায় ভোট গ্রহন পর্ব হাতে গোনা কয়েকদিন বাকি, প্রচারে খামতি রাখছে না কোন রাজনৈতিক দলই। চৈত্রের গরম কে উপেক্ষা করেই বাড়ি বাড়ি গিয়ে জনসংযোগ কে প্রাধান্য দিচ্ছেন বর্ধমান-দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী সন্দীপ নন্দী। এই বিধানসভায় তৃনমূল এবং সংযুক্ত মোর্চার সিপিএম প্রার্থীর নাম ঘোষনার বেশ কয়েকদিন পরে বিজেপি প্রার্থী হিসাবে সন্দীপ নন্দীর নাম ঘোষনা হলেও প্রচারে কোন ফাঁক রাখেননি তিনি। ১৮মার্চ প্রার্থী হিসাবে নাম ঘোষনা হওয়ার পর থেকেই সময় নষ্ট না করেই প্রচারে নেমে পরেছেন সন্দীপ বাবু। প্রত্যেকদিন শহরের দু-তিনটি ওয়ার্ড ঘুরে প্রচার কর্মসূচি সারছেন তিনি। শুনছেন মানুষের অভাব-অভিযোগের কথা। জেলা বিজেপি সূত্রে খবর, এখন পর্যন্ত বর্ধমান-দক্ষিন বিধানসভার অন্তর্গত ৩৫ টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৩৩টি ওয়ার্ডেই প্রচার সেরে ফেলেছেন তিনি।
বুধবার সকাল ৮টা বাজতেই শহরের ১৬নম্বর ওয়ার্ডে পৌঁছে গেলেন প্রার্থী। ওই ওয়ার্ডের পীরতলা মোড় থেকে শুরু করলেন জনসংযোগ কর্মসূচী। কোথাও বয়স্ক মানুষদের পায়ে হাত দিয়ে প্রনাম করে আশীর্বাদ নিচ্ছেন, আবার কোথাও অল্পবয়সীদের সাথে হাত মিলিয়ে শুভেচ্ছা বিনিময় সেরে নিচ্ছেন সন্দীপ বাবু। হাসি মুখে সকলকে তিনি বলছেন, অন্যান্য রাজ্যে কেন্দ্র সরকারের যে উন্নয়নের কর্মযজ্ঞ চলছে তা পশ্চিমবঙ্গে চালু করতে ও পশ্চিমবঙ্গ কে সোনার বাংলা গড়তে বর্ধমানের ঘরের ছেলে কে আর্শীবাদ করার কথা । সূর্যনগর,তেলিপুকুর, মিরছোবা বাঁধ এলাকায় বাড়ির দরজায়, গলির মুখে বা দোকানে দাঁড়িয়ে থাকা সকল বাসিন্দাকে আপন করে নিচ্ছেন বিজেপি প্রার্থী। এলাকার বাদিন্দাদের অনেকেই তাকে ফুল ছুড়ে, মিষ্টি মুখ করিয়ে স্বাগত জানাচ্ছেন। এলাকার এক বৃদ্ধা অনিতা দেবী প্রার্থীকে বলেন পৌরসভা এলাকায় বসবাস করলেও শৌচাগার না থাকায় এখন পর্যন্ত শৌচকর্ম করতে হয় রাস্তার ধারে ড্রেনে।
এলাকার বাসিন্দা অভিজিৎ দাস প্রার্থী কে বলেন, এলাকায় প্ররিশ্রুত পানীয় জলের যেমন অভাব রয়েছে,তেমনই রাস্তার অবস্থা বেহাল। তিনি তাদের আশ্বাস দেন বিজেপি সরকার এলে সব সমস্যার সমাধানের জন্য অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। বেলা বারার সাথে সাথে তাপমাত্রাও বাড়ছে, তাতেও ক্লান্তি নেই প্রার্থীর। টানা প্রায় ছয় ঘন্টা ধরে পায়ে হেঁটে চললো এপাড়া থেকে ওপাড়া বাড়ি বাড়ি প্রচার কর্মসূচি। এরপর দুপুরে তিনি চলে যান শহরের ২০নম্বর ওয়ার্ডে স্থানীয় কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে নির্বাচনী বৈঠক করতে। কি ভাবে তৃণমূল কংগ্রেসের মিথ্যাচার, এলাকায় এলাকায় বিজেপি কর্মীদের উপর আক্রমণ ও সন্ত্রাস বন্ধ করতে নির্বাচন কমিশনের দারস্থ হওয়া যায় তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন প্রার্থী সন্দীপ নন্দী। এরপর বিকাল ৪টায় তিনি চলে যান শহরের ২৭নম্বর ওয়ার্ডে। ওয়ার্ডের শিবশঙ্কর সেবাসদন থেকে পায়ে হেঁটে বাড়ি বাড়ি প্রচার শুরু করেন সন্দীপ বাবু। বাবুরবাগ কালিতলা হয়ে শ্যামলাল। সেখান থেকে ২৯নম্বর ওয়ার্ডের ঝাপানতলায় এসে প্রচার শেষ করেন। প্রায় সন্ধ্যে ৮টা পর্যন্ত চলে বাড়ি বাড়ি জনসংযোগ কর্মসূচি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *