প্রশাসন

সালানপুরে একগুচ্ছ প্রকল্প উদঘাটনে বিধায়ক

সালানপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এর অধীনে কয়েকটি প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন বারাবনি বিধায়ক

কাজল মিত্র

:-শনিবার সকাল থেকেই একগুচ্ছ প্রকল্পের উদ্বোধন বেরিয়ে পড়েন বারাবনি বিধায়ক বিধান উপাধ্যায় ।তিনি প্রথমে মিলাকলা মোড়ে একটি যাত্রী প্রতীক্ষালয় উদ্বোধন করেন সেখান থেকে পড়ে খুদিকা গ্রামের পানীয় জলের সমস্যা সমাধানের জন্য পাইপ লাইনের উদ্বোধন করলেন।
সালানপুর গ্রাম পঞ্চায়েত অন্তর্গত বাইপাস রোডের পাশে অবস্থিত মেলেকোলা গ্রামের সাধারণ যাত্রীদের সুবিধার কথা মাথারেখে সালানপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের (সি.এফ.সি.জি)ফান্ড থেকে মিলাকলা মোড়ে ২লক্ষ ৪১হাজার ৩১৭ টাকা ব্যয় করে একটি যাত্রী প্রতীক্ষালয় নির্মাণ করা হয় তার সাথে সাথে তিনি মেলেকোলা গ্রামে ঘুরে দেখলেন ও সাধারণ মানুষের অসুবিধার কথা শুনলেন ।একইসাথে মেলেকোলা গ্রামে কিছু মাস আগেই তিনি পানীয় জলের পাইপ লাইনের সাহায্যে পানীয় জলের ব্যাবস্থা করে ছিলেন আর তাই তিনি দেখলেন যে ওই গ্রামের মানুষ ঠিক মত জল পাচ্ছে কি না তা।
তাছাড়া একই দিনে তিনি সালানপুর পঞ্চায়েতের খুদিকা গ্রামের নিমতলা থেকে সালানপুর স্টেশন বাজার হয়ে খুদিকা গ্রামের মানুষের দীর্ঘদিনের পানীয় জলের সমস্যার কথা মাথায় রেখে সালানপুর পঞ্চায়েতএর সি.এফ.সি.জি ফান্ড থেকে 2 লাখ 88 হাজার184 টাকা ব্যয়ে পাইপলাইনের কাজের উদঘাটন করলেন।তাছাড়া তিনি গ্রামের মানুষের অভাব অভিযোগের কথা শোনেন,তিনি বলেন বেশির ভাগ মানুষের চাহিদা বৃদ্ধা পেনশন, বিধবা পেনশন ও বাড়ির ।তিনি তাদের আশ্বাস দেন খুব দ্রুত তাদের এই সব সমস্যার সমাধান করা হবে।

এই প্রসঙ্গে বিধায়ক বিধান উপাধ্যায় বলেন দিদিকে বলো অনুষ্ঠানে এসে মেলেকোলা গ্রামের মানুষের চাহিদা ছিলো একটি বাস স্ট্যান্ডের ও পানীয় জলের যদিও পানীয় জলের ব্যাবস্থা আগেই করা হয়েছে তবে
বাস ধরার জন্য বৃষ্টি,রোদের মধ্যে তাদের দাঁড়িয়ে থাকতে হতো রাস্তার উপর।সেইজন্য সালানপুর পঞ্চায়েতের ফান্ড থেকে তাদের অসুবিধার কথা মাথায় রেখে এই বাসস্ট্যান্ডের নির্মাণ করা হলো ও খুদিকা গ্রামে পানীয় জলের সরবরাহের জন্যে পাইপ লাইনের কাজ চালুকরা হল আজথেকে।

বিধায়কের সঙ্গে এদিন উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ কর্মদক্ষ মহম্মদ আরমান,সালানপুর পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি বিদ্যুৎ মিশ্র,সালানপুর গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান দীপিকা বাউরি, সালানপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ভোলা সিং,
তৃণমূল কংগ্রেসের সক্রিয় নেতা বাপি লায়েক,ফুচু বাউরি,বাপ্পা মণ্ডল,সুবীর নন্দী,মানিক দত্ত, শান্তিময় মণ্ডল সহ অনেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *