হাইকোর্ট সংবাদ

বিজেপির রাজ্য সভাপতির মানহানি মামলায় জামিন পেলেন ইমাম

মোল্লা জসিমউদ্দিন,


মঙ্গলবার দুপুরে কলকাতার সিটি সেশন কোর্টে ২০ নং মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের এজলাসে উঠে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের দায়ের করা মানহানি মামলা। এদিন এই মামলায় অভিযুক্ত তৃনমূলপন্থী বেঙ্গল ইমাম এসোসিয়েশনের পদাধিকারী মহম্মদ ইয়ারিয়া ৫০০ টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন পেলেন। গত ০৭/০৮/২০ তারিখে কলকাতায় এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই ইমাম সাহেব বিজেপির বিরুদ্ধে মুসলিমদের ভোট দেওয়া ঠিক নয় বলে সওয়াল করেছিলেন।এহেন মন্তব্যে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সম্প্রতি সিটি সেশন কোর্টে ফৌজদারি মানহানি মামলা দায়ের করেছিলেন। জামিনপ্রাপ্ত ইমাম সাহেবের আইনজীবীদের মধ্যে অন্যতম আইনজীবী অলোক কুমার দাস জানিয়েছেন – ” এদিন মহামান্য আদালত আমাদের সওয়ালে সন্তুষ্ট হয়ে ৫০০ টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন দিয়েছে।এই মামলার পরবর্তী শুনানি রয়েছে আগামী ২১ শে মার্চ”। আসন্ন বিধানসভার প্রাক্কালে বঙ্গীয় রাজনীতিতে  কু মন্তব্যের বহর ক্রমশ বাড়ছে। যা নিয়ে যুযুধান দু’পক্ষই হাজির আদালতে। প্রথমে নিদিষ্ট সময়সীমা বেঁধে লিগ্যাল নোটিশ। লিগ্যাল নোটিশের প্রত্যুত্তর না পেয়ে  তারপর কেউ দেওয়ানীতে মানহানি মামলা দাখিল করেছেন। আবার কেউ ফৌজদারি মানহানি মামলা ঠুকেছেন প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে।ঠিক এইরকম পরিস্থিতিতে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ তিনি একাই চারটি মানহানি মামলা দাখিল করেছেন তৃণমূলের সাংসদ – মন্ত্রী সহ শাসক ঘনিষ্ঠ ইমামের বিরুদ্ধে। এইবিধ ফৌজদারি মানহানি মামলা গুলির বিচার পর্ব যাতে দ্রুত শুরু হয়। সম্প্রতি সেজন্য একাধিক সাক্ষী নিয়ে কলকাতার ব্যাংকশাল – সিটি সেশন আদালতে হাজির হয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ মহাশয়। অভিযোগকারী হিসাবে তিনি মামলাগুলিতে হাজিরা দিয়েছেন ।দিলীপ বাবু তাঁর দায়ের করা চারটি মামলার মধ্যে ডায়মন্ডহারবারের তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, বারাসাত সাংসদ  কাকলী ঘোষ দাস্তিদার এবং মহম্মদ ইয়ারিয়ার নামে এক ইমাম সাহেব কে অভিযুক্ত রেখেছেন। গতবছর ২৯ নভেম্বর ডায়মন্ডহারবারের সাতগেছিয়ায় এক প্রকাশ্য জনসভায় বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সহ বেশ কয়েকজন বিজেপির হেভিওয়েট নেতার বিরুদ্ধে গুন্ডা সম্বোধন করেন স্থানীয় তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এই মন্তব্যের পরিপেক্ষিতে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। তাতে নিদিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দেওয়া ছিল।এরপর ২১ ডিসেম্বর কলকাতার ব্যাংকশাল আদালতে ফৌজদারি মানহানি মামলা দাখিল করেন দিলীপ বাবু। সম্প্রতি বারাসাত সাংসদ কাকলী ঘোষ দাস্তিদার ট্যুইটারের নিজস্ব একাউন্টে মতুয়া ভোট নিয়ে দিলীপ বাবুর মন্তব্য জুড়ে দিয়ে বিতর্কিত পোস্ট করেন বলে অভিযোগ। যদিও এই পোস্ট পরে ডিলিট করে দেন ওই সাংসদ। তাতেও সম্মানহানির প্রশ্নে দিলীপ ঘোষ বারাসাতের সাংসদের বিরুদ্ধে মানহানি মামলা দাখিল করেন।গত ১৬ নভেম্বর বারাসাতের এক জনসভায় রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী মন্তব্য করেছিলেন যে – ‘ বাংলাদেশ থেকে বিএসএফ এবং কাস্টমস এর সহযোগিতায় বিজেপি অস্ত্র আমদানি করছে’। এই মন্তব্যে তথ্য ও প্রমাণ চেয়ে মানহানি মামলা দাখিল করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। অপরদিকে শাসকদল তৃণমূল ঘনিষ্ঠ মহম্মদ ইয়ারিয়ার নামে এক ইমাম সাহেব ‘মুসলিমদের উচিত নয় বিজেপি কে ভোট দেওয়া’  বলে মন্তব্য করেছিলেন। এতেও মানহানি মামলা দাখিল করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। ব্যাংকশাল – সিটি সেশন আদালতে চারটি মানহানির মামলা দাখিল করেছেন দিলীপ বাবু।সম্প্রতি এই মামলা গুলির অভিযোগকারী হিসাবে হাজিরা দেন তিনি ।প্রাথমিক শুনানির লক্ষে একাধিক সাক্ষীও এনেছিলেন আদালত চত্বরে সেদিন।এই চারটি মামলার মধ্যে বেশকিছু মামলা বিধাননগরের ময়ুখ ভবনে এমএলএ /এমপি এজলাসে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। পাশাপাশি সিটি সেশন কোর্টে ইমাম সাহেবের বিরুদ্ধে মানহানি মামলা টি চলছে।মঙ্গলবার আদালতে ৫০০ টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন পেলেন তৃণমূল পন্থী ইমাম মহম্মদ ইয়ারিয়া সাহেব।

ছবি – প্রতীকি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *