রাজনীতি

স্থানীয় প্রার্থীর দাবিতে রামপুরহাটে বিক্ষোভ অনুব্রতের সামনে

 খায়রুল আনাম,

স্থানীয় প্রার্থীর দাবীতে কর্মী বিক্ষোভ অনুব্রতের সামনেই
     
আসন্ন রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের লক্ষ্যে শাসক তৃণমূল কংগ্রেসের বীরভূম জেলা কমিটির পক্ষ থেকে জেলার বিভিন্ন  ব্লকেই দলীয় কর্মীদের নিয়ে বুথ ভিত্তিক কর্মী সম্মেলন করছেন  বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। সেইসব কর্মী সম্মেলনে এলাকার বিধানসভায় কে দলীয় প্রার্থী হবেন, তা দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঠিক করবেন বলে বলা হলেও, দলীয় প্রার্থী মনোনয়নে দলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলই শেষ কথা বলবেন বলে দলীয় কর্মীদের দিক থেকে মনে করা হয় এবং তাঁরা তা বলেও থাকেন। আর তাই এবার বিধানসভা নির্বাচনে স্থানীয় প্রার্থীর দাবীতে দলীয় কর্মসূচীতে অনুব্রত মণ্ডলের সামনেই  ক্ষোভে ফেটে পড়লেন দলীয় কর্মীরা। শুক্রবার ৫ ফেব্রুয়ারি  রামপুরহাট-২ ব্লকের বিষ্ণুপুরে দলের বুথ ভিত্তিক কর্মী সম্মেলনে এমনই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দলের অভ্যন্তরীন ক্ষোভ প্রকাশ্যে এলো বলেও মনে করছেন অনেকেই। যদিও অনুব্রত মণ্ডল এমন কোনও ঘটনা ঘটেনি বলেই দাবী করেছেন।      রামপুরহাট মহকুমার হাঁসন বিধানসভা কেন্দ্রটি নিজেদের দখলে আনতে পারেনি শাসক তৃণমূল কংগ্রেস। ওই কেন্দ্রের বিধায়ক হিসেবে রয়েছেন কংগ্রেসের মিল্টন রশিদ। বাম জামানাতেও আসনটি কংগ্রেসের দখলে থেকে গিয়েছে।  দীর্ঘদিন এখানে কংগ্রেসের বিধায়ক ছিলেন অসিত মাল। পরে তিনি শাসক তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়ে হাঁসন  বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী হয়েও  পরাজিত হন। এরপর তিনি বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী হিসেবে জিতে সাংসদ হয়েছেন।  সেই হাঁসন কেন্দ্রেই এবার  স্থানীয় প্রার্থীর দাবীতেই  দলের  বুথ ভিত্তিক কর্মী সম্মেলনে সোচ্চার হলেন দলীয় কর্মীদের একাংশ। এবং এই ঘটনা ঘটলো দলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের সামনেই। পরিস্থিতি সামাল দিতে অনুব্রত মণ্ডল দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন,  কে প্রার্থী হবেন, তা ঠিক করবেন  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রার্থী ঠিক করার আমি কেউ নই।  কিন্তু তাতেও ক্ষোভ না থামায় তিনি বলেন, আমি প্রার্থী হলে আপনাদের আপত্তি আছে ?   দলের সিউড়ির বিধায়ক ডা. অশোক চট্টোপাধ্যায়  এবার হাঁসনে প্রার্থী হলে  তো আপনাদের আপত্তি নেই। কিন্তু তাতেই দলীয় কর্মীরা আরও ক্ষুব্ধ হয়ে জানিয়ে দেন, তাঁরা বহিরাগত প্রার্থীর বদলে স্থানীয় প্রার্থীই  চাইছেন। পরে তিনি স্থানীয় ব্লক সভাপতি সুকুমার মুখোপাধ্যায়কে প্রার্থী করা হলে কী হবে, তা জানতে চাইলে  উপস্থিত কর্মীরা জানিয়ে দেন যে,  তাঁরা তো স্থানীয় প্রার্থীই চাইছেন। রাজনৈতিক মহল মনে করছে যে, সিউড়ির দলীয় বিধায়ক ডা. অশোক চট্টোপাধ্যায়কে সিউড়ির বদলে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে হাঁসন কেন্দ্র থেকে প্রার্থী করার জন্য দলীয়স্তরে তোড়জোড় চলছে।  তা মানতে না পেরেই এলাকার দলীয় কর্মীরা স্থানীয় প্রার্থীর দাবীতে দলের জেলা সভাপতির সামনেই তাঁদের  অসন্তোষ ও ক্ষোভ ব্যক্ত করেছেন ।।         

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *