রাজনীতি

গলসির ভুঁড়ি অঞ্চলে তৃণমূলের সভা

জ্যোতিপ্রকাশ মুখার্জি,

     কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের কৃষক বিরোধী কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে প্রবল ঠান্ডা উপেক্ষা করে গত দু'মাস ধরে দিল্লী সীমান্তে  আন্দোলনরত কৃষকদের উপর নির্মম অত্যাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাল তৃণমূল কংগ্রেসের তপশিলী জাতি ও উপজাতি সম্প্রদায়ের ঐক্য মঞ্চ। গত ১ লা ফেব্রুয়ারি পূর্ব বর্ধমানের গলসী ২ নং ব্লকের ভুঁড়ি অঞ্চল সভাপতি তথা উপপ্রধান সুবোধ ঘোষের নেতৃত্বে মেরুয়াল গ্রামে এই প্রতিবাদ সভা আয়োজিত হয়। 
  প্রতিবাদ মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সহ সভাধিপতি তথা তৃণমূলের রাজ্য মুখপাত্র দেবু টুডু, বিধায়ক নবীন চন্দ্র বাগ, ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি সুজন মণ্ডল, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি বাসুদেব চৌধুরী, যুব সভাপতি হেমন্ত পাল, ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সহ সভাপতি শৈলেন হালদার ও সুজিত সাম, জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সহ সভাপতি নব কুমার হাজরা, আদিবাসী সম্প্রদায়ের নেত্রী রুবিমনি কিসকু, জয় হিন্দ বাহিনীর সভাপতি গুল মহ মোল্লা, খন্ডঘোষ ব্লকের সভাপতি অপার্থিব ইসলাম, স্হানীয় পঞ্চায়েত প্রধান সুনীল সোরেন সহ তৃণমূলের স্হানীয় নেতা-কর্মীরা ও এলাকার অসংখ্য আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষ।
     প্রতিবাদ মঞ্চে প্রতিটি বক্তা কেন্দ্রের কৃষক বিরোধী নতুন কৃষি আইনের তীব্র সমালোচনা করেন। একইসঙ্গে হাড়হিম করা ঠাণ্ডায় শান্তিপূর্ণ ভাবে  আন্দোলনরত কৃষকদের উপর জলকামান থেকে  ঠান্ডা জল ছিটিয়ে দেওয়াকে মধ্যযুগীয় বর্বরতার সঙ্গে তুলনা করেন।
     অন্যদিকে প্রধান উদ্যোক্তা সুবোধ বাবু বলেন - কৃষিপ্রধান দেশ ভারতের সবচেয়ে বেশি মানুষ কৃষির সঙ্গে যুক্ত। অথচ কৃষি তথা কৃষকদের উপর বারবার কেন আঘাত আনা হবে? নতুন কৃষি আইন যদি কৃষকদের স্বার্থেই হয় তাহলে কেন সংসদে কোনো আলোচনা ছাড়াই কৃষি আইন পাস করা হলো? তার দাবি অবিলম্বে এই কালা আইন প্রত্যাহার করতে হবে।

 765 12,89,834

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *