রাজনীতি

মারা গেলেন বাম নেতা অমল দত্ত

প্রয়াত হলেন বিশিস্ট কমিউনিস্ট ও ট্রেড ইউনিয়ন নেতা কমরেড অমল দত্ত।

       দীপঙ্কর সমাদ্দার ও প্রদীপ সরকারঃ

বেশ কিছু দিন তিনি বাধ্যক্য জনিত রোগে ভুগছিলেন। ভারতের কমুনিস্ট পার্টির আজীবন সদস্য কম. দত্ত পার্টি শিক্ষার সঙ্গে দীর্ঘ দিন যুক্ত ছিলেন। লেনিন স্কুল সংগঠিত হলে তিনি তার সঙ্গে যুক্ত হয়ে পড়েন। রাজ্য স্তরের বিভিন্ন পার্টি স্কুলে শিক্ষকতা করেছেন। পার্টি সংগঠন ও বহুত্তবাদের উপর তার তাঁর লেখা বই যথেষ্ঠ সমাদৃত হয়ে ছিল। তত্ত্ব ও বাস্তবের প্রয়োগ দক্ষতার ক্ষেত্রেও তিনি দক্ষ ছিলেন। খাদ্য আন্দোলন সহ বিভিন্ন গণ সংগ্রামে অংশ নিয়ে বেশ কয়েক বার জেলেও যেতে হয়েছিল। তিনি যুক্ত ২৪ পরগনা জেলা পরিষদ এবং পরবর্তী কালে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার নেতৃত্বে ছিলেন। দীর্ঘ দিন ধরে জেলা এ আই টি ইউ নেতৃত্ব পদে ছিলেন। মার্ক্সবাদী লেনিন বাদি দীক্ষাতে এই মানুষটি পার্টি অন্ত প্রাণ। রেখে গেলেন তার ভাইপো ভাইঝিদের সঙ্গে অগনিত অনুরাগী। তিনি দীর্ঘদিন সমকালকথা পত্রিকার সাথে যুক্ত ছিলেন এবং সম্পাদনা করেছেন।শারীরিক কারণে বা চোখের কিছু সমস্যার কারণে বেশ কিছুদিন ধরে পত্রিকায় লেখালেখি করতে পারছিলেন না। তার মৃত্যু এই পত্রিকার জন্য একটি অপূরণীয় ক্ষতি। যা পূরণ করা এ প্রজন্মের লেখক লেখিকাদের কাছে প্রায় অসম্ভব।

তার মরদেহ বাড়িতে আনা হলে সেখানে আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ,তার রাজনৈতিক দলের অনেক কর্মী এবং বামফ্রন্টের পক্ষ থেকেও মাল্যদান করা হয় এবং মাল্যদান করেন খরদহ পৌরসভার পৌরপ্রধান সমেত অনেক কাউন্সিলর। তাঁদের মধ্যে ছিলেন কাজল সিনহা, স্বপন সাহা এবং শ্যামল দেব।

মরদেহ বাড়ি থেকে তার প্রিয় পার্টির অফিসে হয়ে খড়দহ নাথু পাল শ্মশান ঘাটে শেষকৃত্যের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *