পুলিশ

পশ্চিম বর্ধমানে লকডাউনে আর্থিক দুশ্চিন্তায় বাড়ছে আত্মহত্যা

লকডাউনের তীব্র আর্থিক সঙ্কটের কারনে বেড়েই চলেছে আত্মহত্যা

কাজল মিত্র

:-করোনার ভাইরাস এর জেরে চলছে লকডাউন আর এর কারণে তীব্র আর্থিক অনটনে রয়েছে বহু পরিবার যারমধ্যে অনেকেই আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে বাধ্য হচ্ছে ।
সালানপুর থানায় আত্মহত্যার সংখ্যাও বেড়েই চলেছে।গত সপ্তাহে জলটাঙ্কির এক আবাসন এক যুবক আত্মহত্যার পথ বেছে নেন তার ঠিক আবার একসপ্তাহ পরেই আবার নিজের বাড়িতেই ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গেল রূপনারায়ণপুরের এক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীর। রূপনারায়নপুর বাজারে একটি তেলে ভাজার দোকান করে কোনরকমে সংসার চালাচ্ছিলেন বছর ৪৩ এর সনৎ সেন।অভাবীর সংসারে পরিবার বলতে তার স্ত্রী এক পুত্র ও এক কন্যাকে নিয়ে বসবাস করতেন আছড়া পঞ্চায়েতের সামডি রোডের কেন্দুয়াডি বাবুয়ার কাঠগোলার কাছে উদয় পল্লীতে ।
পরিবার সূত্রে জানা যায়, মৃত সনৎ কুমার সেন দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত ছিলেন। লকডাউন এর পর থেকেই চার মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ ব্যাবসা । যার কারনে একদিকে সংসারের খরচ অন্যদিকে চিকিৎসার খরচ চালানোর জন্য বহু মানুষের কাছে ধার-দেনায় জড়িয়ে পড়ে ।এবং মানসিক চাপে অবশেষে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে অনুমান পরিবারের।
পরিবারের তরফে জানান সনৎবাবু নিজের বাড়িতেই গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন। খবর দেওয়া হয় রূপনারায়নপুর পুলিশকে। ভোররাতে পুলিশ এসে বাড়ির সিলিঙের সঙ্গে দড়িতে ঝুলতে থাকা মৃতদেহ উদ্ধার করে ।এবং পরে মৃতদেহটি
ময়না তদন্তের জন্য আসানসোল জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়।তবে এই ঘটনায়
শোকাহত পরিবার ।তার স্ত্রী এক পুত্র ও এক কন্যা এখন সম্পূর্ণভাবে অসহায় হয়ে পড়লেন।
খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন সমাজ কর্মী উদয় ঘোষ,ও নিমাই সেন,বাদল সেন,তাদের কাছে জানা গেল মৃত সনৎ ভীষণ আর্থিক কষ্টে সংসার চালাচ্ছিল ।আত্মসম্মান বোধে কারো কাছে কিছু বলতে পারতনা সে আর তাই এই অঘটন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *