রাজনীতি

বাংলার ২৬ লক্ষ কৃষক অনলাইনে কেন্দ্রীয় কৃষাণ সম্মান নিধি প্রকল্পে আবেদন করেছে, জানালেন নাড্ডা

সুরজ প্রসাদ,

শনিবার রাতে বর্ধমান শহরে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি বলেন – বাংলার প্রশাসনের রাজনৈতিক করণ হয়েছে। রাজনৈতিক দলের মত কাজ করছে এরাজ্যের প্রশাসন। এটা পুরোপুরি স্পষ্ট হয়ে গেছে। ডায়মণ্ডহারভারে যেভাবে আমার উপর আক্রমণ হয়েছে তা সবাই দেখেছে।গোটা দেশ দেখেছে বলে মন্তব্য করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা। শনিবার পূর্ব বর্ধমানে দিনভর রাজনৈতিক কর্মসূচির পর ২ নম্বর জাতীয় সড়কের পাশে নবাবহাটে একটি হোটেলে সাংবাদিক সম্মেলনে নাড্ডা বাংলার প্রশাসনকে একহাত নেন।
বাংলার কৃষকদের অবস্থা খুবই খারাপ। কিষাণ সম্মান নিধি নিয়েও তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেন।তিনি বলেন ২৬ লক্ষ কৃষক ইতিমধ্যেই কিষাণ সম্মান নিধির জন্য অনলাইনে আবেদন করেছেন। কিন্তু মমতার সরকার তা থেকে কৃষকদের বঞ্চিত করেছে। গোটা দেশের ২৯ টি রাজ্যের মধ্যে বাংলা আছে ২৪ নম্বরে কৃষিক্ষেত্রে। তাহলে তো বোঝায় যায় কৃষিতে এখানে উন্নয়ন হয় নি।

আজ বর্ধমানে তাঁর শোভাযাত্রায় মানুষের উৎসাহ ও জমায়েত দেখেই বোঝা যাচ্ছে মানুষ বিজেপিকে চায়।রোডশোতে মানুষের সুনামী নামে রাস্তায়। বাংলার বদল আসন্ন।মমতার পা এখন মাটিতে নাই। তিনি আষুমান ভারত নিয়েও রাজ্য সরকারকে আক্রমণ করেন। বাংলার গরিব মানুষ এর থেকে বঞ্চিত হয়েছে। আমাদের সরকার বাংলায় এলে আষুমান লাগু হবে।গোটা দেশের বড় বড় হাসপাতালে মানুষ চিকিৎসা পরিষেবা পাচ্ছে। মোদী সরকার এই ব্যবস্থা করেছেন।ক্যানসারের চিকিৎসা পরিষেবা মিলছে আষুমান প্রকল্পে। বাংলা সব থেকে পিছিয়ে আছে। মানুষের আয় কমে গেছে। বাংলার মানুষ মমতার সরকার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। কারণ অন্যায়,কাটমানি।আমপানে ক্ষতিপূরণ নিয়েও দুর্নীতি হয়েছে। কিন্তু বিজেপি সরকার ছাড়বে না।অন্যায় করলে তার সাজা হবে।

তিনি বলেন আগামী বিধান সভা নির্বাচনে বিজেপি এই রাজ্যে দুশোর বেশী আসন নিয়ে সরকার গঠন করবে।
পাশাপাশি তিনি বলেন সরকার দুর্নীতিপরায়ন হলে সেই রাজ্যে উন্নতি হয় না। বাংলাতোও সেই কারণে উন্নয়ন হচ্ছে না।
রাজ্যপাল নিয়ে জেপি নাড্ডা বলেন এটা সম্পূর্ণ সরকারি বিষয়।সুতরাং এই নিয়ে তিনি কিছু বলতে অস্বীকার করেন।
ভ্যাকসিন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ডাকা বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উপস্থিত না থাকা নিয়েও রাজ্য সরকারের কড়া সমালোচনা করেন। তিনি বলেন গোটা পৃথিবীর মধ্যে ভারতের একটা বড় ব্যাপার হল কোভিড ভ্যাকসিন।মমতার ইগোর জন্য বাংলার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হবে।
রাজ্যে জঙ্গি গোষ্ঠীর বাড়বাড়ন্ত নিয়েও খোঁচা দেন জেপি নাড্ডা। তিনি বলেন বাংলার মুর্শিদাবাদ জঙ্গিদের আতুড়ঘর।
বাংলায় কাটমানি কালচার চলছে। চাল চুরি, ত্রিপল চুরি হচ্ছে। এগুলি বাংলার কালচার নয়।মমতা সরকার রাজ্যে আসার পর এইসব কালচার তৈরি হয়েছে। আগে বলা হয় সোনার বাংলা।বাংলা যা ভাবে ভারত তা ভাবে।কিন্তু সেসব এখন কোথায়?
অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের চ্যালেঞ্জ নিয়ে নাড্ডা বলেন জনতা ঠিক করবে।ইডির মুখোমুখি হলেই সব বোঝা যাবে।
এদিন সাংবাদিক বৈঠক শেষে গায়ক দেবজিৎ সাহাকে বিজেপিতে যোগদান করানো হয়।রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ তাকে দলে যোগদান করান নাড্ডার সামনেই।

 129 12,89,834

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *