প্রশাসন

২৪ ঘন্টায় স্বাস্থ্যসাথী কার্ড তুলে দিল সারেঙ্গা প্রশাসন

সাধন মন্ডল,

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মানবিক মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সারেঙ্গা ব্লকের মানবিক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক ফাহিম আলম এর উদ্যোগে অসহায় রাম বিষ্ণু পন্ডা কে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড দরখাস্তের 24 ঘন্টার মধ্যে তার হাতে তুলে দেয়া হলো। যা এলাকার তথা রাজ্যের মধ্যে নজির সৃষ্টি করল জঙ্গলমহলের সারেঙ্গা ব্লকের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন বিশেষ সূত্রে খবর পেয়ে রামবিষ্ণু পণ্ডার কাছ থেকেই তার শারীরিক অসুস্হতা ও দুরবস্হার কথা জানতে পারি এবং উনি ভেলোরে চিকিৎসা করাতে যেতে চান তার অসহায় অবস্থার কথা তিনি আমাকে জানান, আমি অতিরিক্ত জেলা শাসক জেলা পরিষদের সাথে যোগাযোগ করি তার নির্দেশেই স্বাস্থ্য সাথী দরখাস্ত ফিলাপ করে দিই এবং জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় ও তৎপরতায় আজ খাতড়া মহকুমা শাসকের দপ্তর থেকে তার হাতে স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড তুলে দেওয়া হল। যে কার্ড এর সাহায্যে উনার চিকিৎসার জন্য ভেলোরে নিখরচায় ভর্তি হতে পারবেন। যেহেতু পশ্চিমবঙ্গ সরকারের স্বাস্থ্য সাথী কার্ড ভেলোরের খ্রিস্টান মিশনারী হাসপাতাল মান্যতা দিয়েছে। সারেঙ্গা সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক ফাহিম আলম বলেন মানুষের সেবা করাই আমাদের কাজ প্রশাসনে থেকে এটুকু কাজ করতে পেরে আমি খুশি আমি উনার সুস্থতা কামনা করি। এ ব্যাপারে বাঁকুড়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পাদক তারাশঙ্কর মহাপাত্র বলেন বিষয়টি আমি জানতে পেরে বিডিও সাহেব কে পুরো ঘটনাটি জানাই উনি সঙ্গে সঙ্গে যথাবিহিত ব্যবস্থা করেন আমরাও খুশি বিডিও সাহেবের এই কাজে। অসুস্থ রাম বিষ্ণু পণ্ডা বলেন আমি একজন অসহায় মানুষ আমার পক্ষে টাকা দিয়ে ব্রেন টিউমার অপারেশন করা সম্ভব নয় তাই তৃণমূল নেতা তারাশঙ্কর মহাপাত্রের হাত ধরে প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়ে ছিলাম একদিনের মধ্যেই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড হাতে পাওয়ায় আমি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মানবিক মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সারেঙ্গার বিডিও ফাহিম আলম সহ প্রশাসনের সমস্ত আধিকারিকদের আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *