প্রশাসন

পূর্ব বর্ধমান জেলার বৈকুন্ঠপুর ২ নং পঞ্চায়েতে অচলাবস্থা

সুরজ প্রসাদ ,

বর্ধমানে এবারে বেসুরো একটা গোটা পঞ্চায়েতের বেশিরভাগ সদস্য।পূর্ব বর্ধমানের বৈকুণ্ঠপুর ২ নম্বর পঞ্চায়েতের প্রধান শর্মিলা মালিকের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব এনেছেন ৮ জন পঞ্চায়েত সদস্য। এই পঞ্চায়েতের উপপ্রধান গোপাল বিশ্বাসের নেতৃত্বে ৮ জন সদস্য প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা এনেছেন। তার প্রধানকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেবার দাবি জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন বি ডি ও কে। বিদ্রোহী সদস্যদের দাবি ওই গ্রাম পঞ্চায়েতে মানুষ ঠিকমতো পরিষেবা পান না। মানুষ বারবার হয়রাণ হচ্ছেন।প্রধান সাধারণ মানুষের সাথে দুর্বব্যবহার করেন।এমনকি পঞ্চায়েতের সদস্যদের সাথেও খারাপ ব্যবহার করেন। যদিও ৪ জন সদস্য ভিন্নমত। তাদেরই একজন মিতা দাস জানান সব সিদ্ধান্ত সভা ডেকে নেওয়া হয়। মানুষ ঠিক পরিষেবা পান। যদি পরিষেবা কেউ না পান তার দায় সদস্যদের।তাদেরই মানুষ পান না। বিজেপির কৃষক মোর্চার জেলা সম্পাদক দেবাশিস সরকার জানান; এসব কাটমানি আর বখরার লড়াই।এরা কেউ মানুষের ভোটে জেতে নি।গায়ের জোরে ভোটে জিতেছ।বালি থেকে ছোট কারখানা তোলা আদায় নিয়ে এদের ঝামেলা। আগামীদিনে তৃণমূল এভাবেই শেষ হবে। তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য কমিটির সদস্য দেবু টূডু জানান ; একটা সমস্যা হয়েছে শুনেছি। খতিয়ে দেখছি ব্যাপারটা। অন্যদিকে বর্ধমান।সদর ২ নম্বর ব্লকের বি ডি ও সুবর্ণা মজুমদার জানান; তিনি ৮ জন সদস্যের চিঠি পেয়েছেন। কিন্তু পঞ্চায়েত আইনের নিয়ম অনুসারে আড়াই বছর মেয়াদ পেরোনোর আগে অনাস্থা বৈধ নয়। পঞ্চায়েতের প্রথম সভার তারিখ থেকে আড়াই বছর এখনো হয়নি।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *