পুলিশ

হিন্দু স্বামী কে ফিরে পেতে শ্বশুরবাড়িতে ধর্নায় ধর্মান্তরিত বধূ

আমিরুল ইসলাম,


স্বামীকে ফিরে পেতে ধর্নায় স্ত্রী ভাতারের কালিপাহাড়ি গ্রামে।

পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতারের নিত্যানন্দপুর কালিপাহাড়ি গ্রামে স্বামীকে ফিরে পেতে ধর্নায় বসলে স্ত্রী।এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ।

স্থানীয় সূত্রে খবর, ভাতারের কালিপাহাড়ি গ্রামের বাসিন্দা কৃষাসু দের সঙ্গে ফেসবুকের মাধ্যমে কলকাতার গড়িয়াহাট সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা ফিরোজা খানের সঙ্গে পরিচয় হয়। এরপর ধীরে ধীরে সেই পরিচয় প্রেমের আকার ধারণ করে। তারা সুস্থ মস্তিষ্কে কলকাতার কালীঘাটের মন্দিরে হিন্দু মতে বিয়ের পিঁড়িতে বসে। দুজনেই ভিন্ন সম্প্রদায়ের হওয়ায় দুই পরিবারের পক্ষ থেকে আপত্তি থাকায়, ফিরোজা খান হিন্দু মতে ভাতারের কৃষানু দে কে বিবাহ করে ।

ফিরোজা জানান, গত 31 শে ডিসেম্বর আমার স্বামীকে সঙ্গে করে শ্বশুরবাড়িতে দিয়ে চলে যায় আমি। আমার দাবী আমি ভিন্ন সম্প্রদায় হাওয়াই শ্বশুরবাড়ির লোকজন আমার স্বামীকে লুকিয়ে রেখেছে। আমার স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ করতে দিচ্ছে না । দীর্ঘ কয়েকদিন স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারি নাই আমি তাই ,অবশেষে ধর্নার পথ বেছে নিতে হলো। যতক্ষন না স্বামীকে আমি ফেরত পাব ততক্ষণ পর্যন্ত ধর্নায় থাকবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *