ক্রীড়া সংস্কৃতি

রতন দত্ত সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির রক্তদান শিবির

গোপাল দেবনাথ

করোনা অতিমারীর সময়ে যত সংখ্যক মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন তার চেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষ আমাদের দেশে রক্তের সংকটে প্রাণ হারিয়েছেন। দীর্ঘকালীন লক ডাউনের সময়ে রক্ত সংগ্রহ করা সম্ভবপর হয়নি। রক্তের আকালের কথা মাথায় রেখে প্রতি বছরের মতো এই বছরেও স্বেচ্ছা রক্তদানের শিবির আয়োজন করেন রতন দত্ত সোশ্যাল ওয়েল ফেয়ার সোসাইটি। রক্তদান মহৎ দান, তাই স্বাভাবিক ভাবেই রক্তদানের মতন পুন্য কাজে এগিয়ে আসা সকলের কর্তব্য। আজও এই রক্ত দানের মতো মহৎ কাজে অংশ গ্রহণ করেছেন বহু মানুষ এবং আগেও এই ধারা অব্যাহত রেখে এই ভাবেই এগিয়ে আসবেন আরো অনেকে।
৯৫,কেশব চন্দ্র স্ট্রিটের ব্রহ্ম সমাজ হল এ প্রয়াত বিশিষ্ট সমাজসেবী রতন দত্ত সোস্যাল ওয়েল ফেয়ার সোসাইটির উদ্যোগে ৩৯ তম স্বেচ্ছা রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়। ৩৯ বছর ধরে টানা রক্তদান শিবিরের রেকর্ড দেশে কোথাও আছে বলে জানা নেই। আজকের রক্তদান শিবিরে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল নেতা শ্রী সঞ্জয় বক্সী, বিধায়িকা শ্রীমতি স্মিতা বক্সী, পুরসভার বোরো চেয়ারম্যান কো অর্ডিনেটর শ্রী স্বপন সমাদ্দার, শ্রী সৌম বক্সী, পুরমাতা কো অর্ডিনেটর শ্রীমতি সাধনা বোস, উত্তর কলকাতা মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদিকা শ্রীমতি সুপর্ণা দত্ত, শ্রী অরুন হাজরা, তমঘ্ন ঘোষ, প্রবন্দ রায়, উত্তর কলকাতা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সম্পাদিকা স্বর্ণালী দে মিশ্র, সুপর্ণা দত্ত এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন এলাকার বিশিষ্টজন। এই রক্তদান শিবিরে করোনাকালে প্রয়াত বিশিষ্ট চিত্রসংবাদিক রনি রায়ের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। রনি এই সোসাইটির সক্রিয় সদস্য ছিলেন। এই রক্তদান শিবিরে ৭৬ জন স্বেচ্ছা রক্তদাতা রক্তদান করেন। এই শিবিরেই বেশ কয়েকজন সাংবাদিক রক্তদানের মতো মহান কাজে সামিল হয়ে রক্তদানে অংশগ্রহণ করেন। পুরো রক্তদান শিবিরটি সরকারি অতিমারী বিধি মেনে আয়োজন করা হয়। রক্তদান শিবিরের আয়োজকরা হলেন, হীরণময় বাগ, সুরেশ সিং, শঙ্কর বণিক, মৃত্যুঞ্জয় রায় (ন্যাপা), সতীশ গুপ্তা, অজিত দত্ত প্রমুখরা এবং সহযোগিতায় ছিলেন ই-বুকলিস্ট ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *