প্রশাসন

রাইপুরে মেঠো দিবস পালন

সাধন মন্ডল,

আজ 31 শে ডিসেম্বর পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কৃষি বিভাগ থেকে মেঠো দিবস পালন করা হচ্ছে সারা রাজ্যে। পিছিয়ে নেই জঙ্গলমহলের রাইপুর। রাইপুর ব্লক সহ কৃষি অধিকর্তার করণের আয়োজনে শ্যামসুন্দরপুর অঞ্চলের শ্যামসুন্দরপুর হাইস্কুলে অনুষ্ঠিত হলো মেঠো দিবস ও কৃষক প্রশিক্ষণ শিবির। শ্যামসুন্দরপুর এলাকার বিভিন্ন গ্রাম থেকে ৮৫ জন কৃষক (পুরুষ ও মহিলা মিলে) প্রশিক্ষণ শিবিরে যোগ দেনন। প্রশিক্ষণ শিবিরের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন রাইপুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুলেখা মাহাত। তিনি বলেন আমাদের এলাকার চাষিরা গতানুগতিক একই ফসল চাষ করে চলেছেন ফলে তারা চাষ থেকে সেভাবে লাভ পাচ্ছেন না তাই ধানের বিকল্প চাষের উপর জোর দিতে এই প্রশিক্ষণ শিবির। আমাদের এলাকা যেহেতু জলে স্বয়ংসম্পূর্ণ নয় তাই বিকল্প চাষের প্রতি চাষীদের ঝোঁক রয়েছে সেই ঝোঁক কে কাজে লাগিয়ে বিকল্প চাষে আয়ের উৎস জোগাতে মাঠে নেমে পড়েছে রাইপুর ব্লক সহ কৃষি অধিকর্তা তথাগত নাথ। প্রশিক্ষণ শিবিরে উপস্থিত ছিলেন বাঁকুড়া জেলা কৃষি সম্প্রসারণ আধিকারিক সুশান্ত মহাপাত্র, বাঁকুড়া জেলা সহ কৃষি অধিকর্তা শংকর দাস, খাতড়া ব্লক কৃষি সম্প্রসারণ আধিকারিক পঞ্চানন ঘোষ, আতমা প্রকল্পের রাজীব ঘোষ, উদয় ভানু পাল, অপূর্ব দে, উত্তম ঘোষ, সহ কৃষি সসম্প্রসারণ আধিকারিক ফাল্গুনী পাত্র কৃষি প্রযুক্তি সহায়ক স্বপন মজুমদার প্রমুখ। রুখা সুখা জমিতে কি ফসল ফলিয়ে চাষীদের আর্থিক উন্নতি ঘটানো যায় সেই লক্ষ্যে তাদের তৈলবীজ, মসুর ছোলা, সরিষা ইত্যাদি চাষের প্রতি আগ্রহ বাড়াতে ও জমিতে রাসায়নিক সারের বদলে জৈব সারের প্রয়োগের মাধ্যমে ভালো ফসল ফলানোর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়, আবার উৎপাদিত ফসল বাজারজাত করার বিষয়েও ও দীর্ঘ আলোচনা করেন জেলা কৃষি সম্প্রসারণ আধিকারিক সুশান্ত মহাপাত্র। তিনি বলেন সুসংহত শিশু শস্য পুষ্টি তথা সুসংহত শস্য রক্ষা করা আমাদের কাজ। সারাদেশে বিকল্প চাষের উপর জোর দেওয়া হচ্ছে একই জমিতে বারবার একই ফসল ফলালে তার উৎপাদন কমে যায় তাই মাঝে মাঝে বিকল্প চাষ করা একান্ত প্রয়োজন তাহলে অর্থনৈতিক মন্দা থেকেই নিজেকে বাঁচানো যায়। মহকুমা কৃষি অধিকর্তা শংকর দাস বলেন জলের অপচয় রোধ করতে হবে চাষের কাজে জল খরচ কমানো দরকার। কিভাবে উন্নত প্রযুক্তিতে চাষে জল ব্যবহার করা যায় তার বিশদ ব্যাখ্যা দেন তিনি। এছাড়া কৃষি সমবায় সমিতি না থাকলে গড়ে তোলার কথা বলেন এবং জৈব সার তৈরি ও জৈব সারের প্রয়োগ বাড়ানোর কথা বলেন। উপস্থিতি কৃষকদে ধান সহ বিভিন্ন ফসলের চাষের পদ্ধতি নিয়ে বিশদ ব্যাখ্যা দেন আতমা প্রকল্পের উদয় ভানু পাল ও সহ কৃষি সম্প্রসারণ আধিকারিক ফাল্গুনী পাত্র। এলাকার সফল চাষী জয়ন্ত মাহাত বলেন আমি ধান ছাড়াও তরমুজ ও সবজি চাষে লাভবান হয়েছি তাই এলাকার চাষীদের ধানের বিকল্প চাষে উদ্বুদ্ধ করাতেই এই প্রশিক্ষণ শিবিরে এসেছি। রাইপুর ব্লক সহ কৃষি আধিকারিক তথাগত নাথ আমাদের বিকল্প আয়ের পথ দেখাচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *