রাজনীতি

মুখ্যমন্ত্রীর সফর ঘিরে বোলপুরে তৎপরতা তুঙ্গে

খায়রুল আনাম (সম্পাদক আয়না টেলি নিউজ )

  মুখ্যমন্ত্রীর সফর ঘিরে  বোলপুরে তৎপরতা তুঙ্গে
         
ইতিপূর্বে রাজনৈতিক কর্মী এবং রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বহুবার বীরভূমের বোলপুর শহরে এসেছেন। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তিনি জেলা প্রশাসনিক বৈঠকের সূচনাও করেছিলেন বোলপুরের গীতাঞ্জলি সংস্কৃতি অঙ্গন থেকে। প্রথম দিকে তিনি বোলপুর সার্কিট হাউসে উঠলেও, এখানকার বল্লভপুরের  আমার কুটিরের রাজ্য  সরকার  রাঙাবিতান  তৈরী করার পর থেকে মুখ্যমন্ত্রী রাঙাবিতানে এসেই ওঠেন। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটছে না। এবার মুখ্যমন্ত্রী তাঁর দু’দিনের বোলপুর সফরে  এসে প্রথম দিন ২৮ ডিসেম্বর বোলপুরের গীতাঞ্জলি সংস্কৃতি অঙ্গনে  করবেন জেলা প্রশাসনিক বৈঠক।  তারপর তিনি চলে যাবেন রাঙাবিতানে। সেখানে রাত্রিবাস করে তিনি পরদিন ২৯ ডিসেম্বর বোলপুর শহরে একটি পদযাত্রা করবেন। আর তা নিয়েই তৈরী হয়েছে সবচেয়ে বেশি কৌতূহল।    মুখ্যমন্ত্রী  আজ ২৮ ডিসেম্বর দুপুর দেড়টার সময় আকাশ পথে হেলিকপ্টারে  গীতাঞ্জলি সংস্কৃতি অঙ্গনের পিছনে তৈরী অস্থায়ী হেলিপ্যাডে এসে নামবেন।  এখানকার শান্তিদেব ঘোষ সভাকক্ষে তিনি সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলবেন বলে কথা রয়েছে। আগে জেলা প্রশাসনিক বৈঠকে সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার থাকলেও, এবার তা হচ্ছে না। মুখ্যমন্ত্রী পৃথকভাবে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলবেন শান্তিদেব ঘোষ সভাকক্ষে।  প্রশাসনিক বৈঠকের প্রারম্ভে মুখ্যমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে পরিবেশিত হবে রবীন্দ্র সঙ্গীত। এজন্য রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পীদের  তালিম দিতে বোলপুরে পৌঁছে গিয়েছেন রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পী তথা রাজ্যের মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন। শিল্পীদের  তিনি ‘বাংলার মাটি, বাংলার জল’ ও ‘আমাদের শান্তিনিকেতন’ গান দু’টির তালিম দিচ্ছেন।  মুখ্যমন্ত্রী বোলপুর মহকুমা হাসপাতাল ও স্থানীয় যে  বেসরকারি হাসপাতালটিকে কোভিড হাসপাতাল হিসেবে গড়ে তুলে করোনা রোগীদের চিকিৎসা চলছে, সেই হাসপাতালটিকেও পরিদর্শন করতে পারেন বলে জানা যাচ্ছে। এজন্য  দু’টি জায়গাতেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এই সফরে তিনি শান্তিনিকেতনের সোনাঝুরিতে যে হস্তশিল্পের হাট বসে, সেখানেও যেতে পারেন। এজন্য শনিবারের হাট চত্বরকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে।       পরদিন ২৯ ডিসেম্বর মুখ্যমন্ত্রী  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বোলপুরে রাজনৈতিক কর্মসূচীতে অংশ নিবেন। ২০ ডিসেম্বর  দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা অমিত শাহ বোলপুর ডাকবাংলো মাঠ থেকে  বোলপুর চৌ-রাস্তা পর্যন্ত রোড- শো করেছিলেন। সেই পথেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়  এক হাজার মহিলা কর্মীকে সামনে রেখে বাউল, কীর্তনিয়া, মতুয়া সম্প্রদায়ের লোকজন-সহ আড়াই লক্ষ মানুষকে নিয়ে পদযাত্রা করবেন বলে জানানো হয়। কিন্তু পরবর্তীতে এই পদযাত্রার পরিধি বাড়ার সম্ভাবনা দেখা দেওয়ায়,  সেইমতো প্রস্তুতি নেওয়া শুরু হয়েছে। কেননা, ডাকবাংলো মাঠ থেকে চৌ-রাস্তা পর্যন্ত এক কিলোমিটারের কম রাস্তায় এত মানুষের পদযাত্রা করা সম্ভব নয় বলে মনে হওয়ায়, পদযাত্রার পথ বাড়াবার কথা ভাবা হয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চার কিলোমিটার পথে শ্রীনিকেতন পর্যন্ত এই পদযাত্রা করতে পারেন বলে ধরে নিয়ে প্রশাসনিকভাবে সেই প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। এজন্য এই পথের দু’পাশ দলীয় পতাকা, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি ও   রবীন্দ্র কবিতার উদ্ধৃতি দেওয়া  প্রচার  ফ্লেক্স লাগানো হয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে স্বাগত জানিয়ে শহরের বিভিন্ন পথে তৈরী করা হয়েছে কুড়িটি তোরণ।। 
 ছবি : স্বাগত তোরণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *