রাজনীতি

মন্তেশ্বরের ‘প্রভাবশালী’ তৃণমূল নেতারা মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপিতে

সেখ সামসুদ্দিন,

মুকুল রায়ের হাত থেকে পতাকা নিয়ে বিজেপিতে যোগদান করেন তৃণমূল দলের মেমারি ২ পঞ্চায়েত সমিতির প্রাক্তন সভাপতি ও বর্তমান সদস‍্য অমল বাগ, জেলা পরিষদ প্রাক্তন সদস‍্য বাপি হাঁসদা, প্রাক্তন যুব সভাপতি স্বরূপ মন্ডল সহ কুচুট ও বিজুর পঞ্চায়েতের কয়েকজন সদস‍্য তিন হাজার তৃণমূল কর্মী সমর্থকবৃন্দ। উল্লেখ্য সম্প্রতি বিজেপিতে যোগদানকারী সকল তৃণমূল বিধায়ক থেকে সদস‍্য কোনো না কোনো ভাবে লবি রাজনীতির শিকার হয়ে তৃণমূল দলে যথাযোগ্য মর্যাদা পায়নি এবং বলা যায় তাদের একপ্রকার বাধ‍্য করা হয়েছে বিজেপিতে যোগদান করতে। মন্তেশ্বর বিধানসভার মেমারি ২ ব্লকের সাতগেছিয়া বাজারে ভারতীয় জনতা পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি মুকুল রায় সভা করলেন। সেই সভায় মানুষের উপস্থিতি ছিল নজরকাড়া, যা হয়তো বিজেপি দলও আশা করেনি। এদিন মুকুল রায়ের সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা সভাপতি কৃষ্ণ ঘোষ, কাটোয়ার দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলার সহসভাপতি বিনোদ ঘোষ, জেলা সম্পাদক বিশ্বজিৎ পোদ্দার, জেলার জেনারেল সেক্রেটারি সুবীর মন্ডল, জেলার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব বহনকারী রাজীব ঘোষ, জাতীয় পরিষদ সদস‍্য ডাঃ গোবর্ধন দাস, উঃ ২৪ পরগণা জেলার কর্মাধ‍্যক্ষ রতন ঘোষ, জাতীয় মহিলা মোর্চার নেত্রী, রাজ‍্য সদস‍্য গোপাল চট্টোপাধ্যায়, কালনার বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুন্ডু, মন্তেশ্বরের খাদিমদা তথা দেবব্রতবাবু সহ সর্বস্তরের নেতৃত্ব। একমাত্র অনুপস্থিত ছিলেন মন্তেশ্বরের বিধায়ক পারিবারিক নিকট আত্মীয় বিয়োগের কার্যাদির কারনে। মুকুল রায় বলেন ২০১০ সালে জনজোয়ারে তৃণমূলকে সিপিএম আটকাতে পারেনি, ঠিক তেমনি ভাবে ২০২১ সালে জনজোয়ারে তৃণমূল ভেসে যাবে বিজেপিকে আটকাতে পারবে না। অত‍্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলেন বাংলায় নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করা ও তৃণমূল সরকারের বিদায় করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *