ক্রীড়া সংস্কৃতি

২৩ শে ডিসেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে ধ্যানযোগের অনলাইন মহাশিবির

অনুষ্ঠিত হতে চলেছে বর্ষশেষের বৃহৎ “মহাশিবির”: সমর্পণ ধ্যানযোগের প্রশিক্ষণ

সুবল সাহা

পিন্টু মাইতি ,

আধ্যাত্মিক পুরুষ পরমপূজ্যপাদ শ্রী শ্রী শিবকৃপানন্দ স্বামীজির সান্নিধ্যে আগামী ২৩থেকে ৩০শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হতে চলেছে এক বৃহৎ অনলাইন মেগা শিবির। গুরুতত্ত্ব দ্বারা আয়োজিত উক্ত শিবিরের নামকরণ করা হয়েছে” মহাশিবির”।

বর্তমান পরিস্থিতিতে বৃহত্তর অংশের ভক্ত ও সাধারণ মানুষকে মানসিক শান্তি ও শারীরিক সুস্থতার উপায় প্রদর্শন করার উদ্দেশ্যে গুরুতত্ত্ব ঘরে বসেই ঐশ্বরিক ধ্যানযোগের দিব্য অনুভূতির সুযোগ দিচ্ছে। আগামী ২৩ থেকে ৩০শে ডিসেম্বর সকাল ৬টা থেকে ৮টা পর্যন্ত ইউটিউব লাইভ-এ পরমপূজ্যপাদ শ্রী শ্রী শিবকৃপানন্দ স্বামীজি সরাসরি বিশ্বব্যাপী ঐশ্বরিক হিমালয়ের ‘সমর্পণ’ ধ্যানযোগ-এর প্রশিক্ষণ দেবেন। সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত্রি ৮টা পর্যন্ত পুনঃপ্রচার দেখার পাশাপাশি gurutattva.org-তে লগ অন করেও অনুষ্ঠান দেখা যাবে। ভূমি বাংলা নিউজ চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচার ছাড়াও সংবাদ দেখা যাবে SS NEWS1 ইউটিউব চ্যানেলেও। প্রতিদিনই সমস্ত কিছু দেখা ও শেখা যাবে সম্পূর্ণ নিঃশুল্ক ভাবে।

“সমর্পণ” হল ৮০০ বছরের সুপ্রাচীন ঐশ্বরিক হিমালয়ের ধ্যানযোগ। পরমপূজ্যপাদ শ্রী শ্রী শিবকৃপানন্দ স্বামীজি ১৬ বছর হিমালয়ে অতিবাহিত করে বিভিন্ন গুরুজীর সান্নিধ্যে থেকে উক্ত বিশেষ জ্ঞান আহরণ করেন। মনের সূক্ষ্ম অনুভূতি, প্রকৃতির সাথে সম্পৃক্ততা এবং দিব্য অনুভূতির সংমিশ্রণে দেহ থেকে আভামন্ডল বিচ্ছুরিত করবার শক্তি অর্জন করেছেন তিনি, যা বৈজ্ঞানিক ভাবে পরীক্ষিত। সমর্পণ ধ্যানযোগের অনুভব এবং তা শেখার কৌশল সমূহকে সরাসরি বিশ্বমানবের সামনে নিঃশুল্ক ভাবে উপস্থাপন করার জন্য গুরুতত্ত্ব সমস্ত প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে।

সমর্পণ ধ্যানযোগ কোন জটিল শ্বাসকষ্ট কিংবা যোগব্যায়ামের সাথে সংশ্লিষ্ট নয়। বিভিন্ন ঘাত-প্রতিঘাতে মানসিক ভাবে জর্জরিত এবং শারীরিক ভাবে দুর্বলতা থেকে মুক্তি পেতে হিমালয়ের ঐশ্বরিক ‘সমর্পণ’ ধ্যানযোগ প্রশিক্ষণ লাভ করবার এটাই সেরা সুযোগ।
একজন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আধ্যাত্মিক গুরু হিসেবে পরমপূজ্যপাদ শ্রী শ্রী শিবকৃপানন্দ স্বামীজি বিশ্বের ৫০টির বেশি দেশে নিঃশুল্ক ভাবে এই ধ্যানযোগের প্রশিক্ষণ দিয়ে এসেছেন। ২০১৫ সালে দেশের সংসদ ভবনেও তিনি আমন্ত্রিত হয়েছিলেন। নেপালের ব্র্যান্ড অ্যামবাসাডর পদের সাম্মানিক পদমর্যাদায় ভূষিত হন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *