পুলিশ

ঝাড়খণ্ড সীমান্তে বারবার বিস্ফোরক উদ্ধারে দুশ্চিন্তা বীরভূমে

খায়রুল আনাম ,

 জেলা সীমান্তে  বার বার বিস্ফোরক  উদ্ধারে   বাড়ছে আতঙ্ক
   
এ রাজ্যের বীরভূম জেলা সীমান্তের সাথে জুড়ে রয়েছে পার্শ্ববর্তী ঝাড়খণ্ড রাজ্যের বিস্তীর্ণ এলাকা। আর দুই রাজ্যের এই সীমান্ত  এলাকা দিয়ে উভয় রাজ্যের মধ্যে মাদক পাচারের সাথে সাথে যে ভাবে বিস্ফোরক পাচার হচ্ছে তাতে, উদ্বেগ বাড়ছে বিভিন্ন দিক থেকেই। দুই রাজ্যের পুলিশ প্রশাসন একাধিকবার এনিয়ে বৈঠক করলেও,  এই পাচার রোধ করা যায়নি।  বিগত কয়েক মাস ধরেই এই পাচারের মাত্রা বেড়ে গিয়েছে বলেও মনে   করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই এরাজ্যে বিধানসভা ভোটের দামামা বেজে গিয়েছে। তারই মধ্যে এভাবে বিস্ফোরক পাচারের ঘটনা সামনে আসায় উদ্বেগও বাড়ছে। অনেকেই মনে করছেন যে, মাঝেমধ্যে সীমান্ত এলাকায় বিস্ফোরক উদ্ধার হলেও, রহস্যজনকভাবে পাচারকারীরা অধিকাংশ সময়ই ধরা পড়ে না। পুলিশ বিস্ফোরক ভর্তি গাড়িই শুধু আটক করে। এবারও যার ব্যতিক্রম ঘটলো না।       কিছুদিন আগেই ২৮ জুন ঝাড়খণ্ড  রাজ্য সীমানা এলাকার বীরভূমের  রামপুরহাট   মহকুমার  মুরারই থানার  রাজগ্রামের আম্ভুয়া মোড় থেকে সিআইডি ও পুলিশ  বিস্ফোরক ভর্তি দু’টি লরি ও একটি মোটরভ্যান আটক  করে।  দু’টি গাড়ির চালক  পালিয়ে যেতে পারলেও একটি গাড়ির  চালককে আটক করতে পারে পুলিশ। আটক গাড়িগুলি থেকে উদ্ধার হয়েছিল  ২৩ হাজার  পিস জিলেটিন স্টিক ও ১৭২ বস্তা অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট। এর আগেও  এখানকার রদিপুর গ্রামের কাছ থেকে  গাড়ি ভর্তি ১১৯ কুইন্টাল অ্যামোনিয়াম নাইট্রেড ও এক লক্ষ  ডিটোনেটর  উদ্ধার করেছিল পুলিশ। নলহাটির  লক্ষ্মীনারায়ণপুর থেকে ট্রাক্টর ভর্তি হয়ে বিস্ফোরক আসা গাড়ি সে সময় পাহারা দিয়ে নিয়ে আসছিল একটি মোটরবাইক। পুলিশ  ঝাড়খণ্ড সীমানার ভেলাই পাথরা গ্রামের কাছে মোটরবাইকটি আটকাবার চেষ্টা করতেই মোটরবাইকে থাকা দু’জন মোটরবাইক ফেলে চম্পট দেয়।  পুলিশ  পিছনে আসা একটি ট্রাক্টর উদ্ধার করতে পারলেও তার চালক পালিয়ে যায়। ওই ট্রাক্টরের  ভিতর থেকে পশ্চিমবঙ্গ  সরকারের খাদ্য দফতরের আটার পলিথিনের বস্তার ভিতর থেকে আটার বদলে পাওয়া যায়  ৩৮ টি প্যাকেটে ১ হাজার ৯০০ ডিটোনেটর ও ২৫ টি বস্তার মধ্যে ১০ হাজার  জিলেটিন স্টিক।  এবার আবারও  ১৫ ডিসেম্বর সেই নলহাটি থানার লক্ষ্মীনারায়ণপুরে একটি ট্রাক্টর আটক করে পুলিশ তা থেকে উদ্ধার করলো ৪ হাজার ৭৬৯ পিস জিলেটিন স্টিক ও সাড়ে ৫ কুইন্টাল অ্যামোনিয়াম নাইট্রেডের মতো নিষিদ্ধ পদার্থ।   এবারও পুলিশ ট্রাক্টরের চালককে আটক করতে পারেনি।।     

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *