রাজনীতি

পূর্বস্থলীতে কেন খুন বিজেপি কর্মী?

শ্যামল রায়,

: পূর্বস্থলীর ২ নম্বর ব্লকেরনিমদাহ গ্রামে বিজেপি কর্মী খুনের অভিযোগ ঘিরে তোলপাড় রাস্তা অবরোধ


পূর্বস্থলী থানার নিমদহ গ্রামে এক বিজেপি কর্মীর দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য এলাকায়। রবিবার ওই কর্মীর বাড়ির নিকটে একটি জলাশয় থেকে উদ্ধার করে মৃতদেহটি পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে মৃত যুবকের নাম সুকদেব প্রামানিক।
অভিযোগ বিজেপি কর্মী সুকদেব প্রামানিক কে খুন করে জলাশয় ফেলে দেওয়া হয়েছে অভিযোগের আঙুল উঠেছে শাসক দলের দিকে।
সোমবার পূর্বস্থলীর ২ নম্বর ব্লক সহ এক নম্বর ও মন্তেশ্বর ব্লকের আঁকায় রাস্তা অবরোধ করে দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে বিজেপি কর্মীরা। পূর্বস্থলীর 2 নম্বর ব্লকের কালনা কাটোয়া রোড ছাতনি মোড়ে এবং গনপুর সাতগাছিয়া পূর্বস্থলী 1 নম্বর ব্লক বিডি অফিস লগ্ন কালনা কাটোয়া রোড এবং মন্তেশ্বর বাজার সহ বামুনিয়া বাজার এলাকায় বিজেপি কর্মীরা পথ অবরোধ করে এবং টাওয়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখান। মন্তেশ্বর থানা এলাকায় বিভিন্ন অবরোধে বক্তব্য রাখেন জেলা কমিটির সদস্য দেবব্রত রায় রাকেশ ঘোষ রাজেশ রায় তড়িৎ কান্তি রায় আশীষ মুখার্জি প্রমুখ নেতা।
এছাড়াও এদিন নিমদাহ গ্রামে বিজেপি কর্মীর বাড়িতে এসেছিলেন বিজেপির নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি ওই কর্মীর পরিবারের লোকজনদের সাথে কথা বলেন এবং দ্রুত যাতে খুনিদের গ্রেপ্তার করা হয় এবং তদন্ত করা হয় পুলিশকে বিষয়টি জানাবেন এছাড়াও তিনি বিজেপির উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলবেন এবং দ্রুত পরিবারকে যাতে আর্থিক সাহায্য করা যায় সে ব্যাপারে তিনি উদ্যোগ গ্রহণ করবেন। রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগ বাংলা জুড়ে যেখানে বিজেপির প্রভাব বাড়ছে বিজেপি ক্ষমতাসীন হবে শাসক দলের কর্মী নেতারা ভয় পেয়ে আমাদের কর্মী-সমর্থকদের উপরে মিথ্যা মামলা দিচ্ছে মারধর করছে এবং মেরে ফেলার ছক করছে।
তীব্র ভাষায় তৃণমূল শাসক দলের নেতাকর্মীদের কটাক্ষ ভাষায় আক্রমণ করেন।
এই পথ অবরোধে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির জেলা কমিটির সম্পাদক বিধান ঘোষ গোবর্ধন দাস জেলা সভাপতি কৃষ্ণ ঘোষ সহ অনেকে। জানা গিয়েছে যে দুই দিন আগে বিজেপি নেতা জে পি নাডডার  সমর্থনে এক সভায় যোগ দিতে গিয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। পেশায় একজন চা বিক্রেতা কয়েকদিন আগেই তিনি বিবাহ করেছেন বলে জানা গিয়েছে। বাড়িতে ফিরে না আসায় রবিবার বাড়ি সন্নিকটে একটি জলাশয় থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। স্থানীয় বিজেপি নেতাদের দাবি সুকদেব প্রামানিক এলাকার জনপ্রিয় কর্মী ছিলেন এবং বিজেপির শক্তি বৃদ্ধিতে তারা আন্দোলনে নেতৃত্ব ছিল উল্লেখযোগ্য শাসক দলের কর্মী নেতারা ভয় পেয়ে এই ধরনের খুনের চক্রান্ত করেছে বলে তাদের বলে অভিযোগ পুলিশ তদন্ত করে দোষীদের গ্রেপ্তার করুক। যদিও এই ধরণের খুনের কথা অস্বীকার করা হয়েছে তৃণমূলের তরফ থেকে এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং অপপ্রচার বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দলের জেরে এই ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে বলে প্রাথমিক অনুমান । এই এলাকায় বিজেপির একাধিক গোষ্ঠী কোন্দলের কারণে কিছুদিন আগেও এক বড় ধরনের মারামারি পূর্বস্থলী থানার মাঠের ঘটেছে এছাড়া না মাঝেমধ্যেই নেতা-কর্মীদের মধ্যে হাতাহাতি মারামারি গন্ডগোল লেগেই আছে তাই মিথ্যে ভাবে তৃণমূলের উপর দোষ চাপাচ্ছে বিজেপি কর্মী নেতারা।এটা  সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং মিথ্যা। পুলিশ জানিয়েছে গোটা বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ধ্রুব দাস জানিয়েছেন যে আমরা অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত চলছে।
 এদিন বিজেপি কর্মী খুনের প্রতিবাদে বিজেপি নেতাদের পথ অবরোধে কালনা কাটোয়া রোড এবং বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক যানজট তৈরি হয় তবে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে স্বাভাবিক পরিস্থিতি নিয়ে আসে। নেতারা পথ অবরোধ করে এবং টায়ার জ্বালিয়েে দেয়

 151 12,89,834

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *