রাজনীতি

উনি রাজা যা খুশি করবেন, মুখ্যমন্ত্রী নিয়ে মন্তব্য কৈলাশ বিজয়বর্গীর

খায়রুল আনাম ,

 সংবিধানের উপর মমতাজীর বিশ্বাস না থাকার অভিযোগ কৈলাসের
       
রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্বাচিত জন প্রতিনিধি হওয়া সত্বেও,  তিনি গণতন্ত্রের প্রতি কোনও সম্মান প্রদর্শন করেন না।  এমনই অভিমত  রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীর।  রবিবার ১৩  ডিসেম্বর শান্তিনিকেতনে এসে এমনই মন্তব্য করেন তিনি। এদিন তিনি বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ  চক্রবর্তীর সঙ্গে তাঁর শান্তিনিকেতনের পূর্বপল্লির ‘ পূর্বিতা’ বাসভবনে গিয়ে  তাঁর সাথে বৈঠকও  করেন।  এবার বিশ্বভারতীর শতবর্ষ পালন উৎসবে ৮ পৌষ, ২৪ ডিসেম্বর বিশ্বভারতীর আচার্য তথা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে শান্তিনিকেতনে  উপস্থিত থাকার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। কৈলাস বিজয়বর্গীয় জানান,  ওইদিন প্রধানমন্ত্রী  নরেন্দ্র মোদি সশরীরে হাজির না থেকে ভার্চুয়াল ভাষণ দেবেন বলে কথা হয়েছে। তবে, ওইদিন বিশ্বভারতীর রেক্টর তথা রাজ্যের রাজ্যপাল এবং কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী শান্তিনিকেতনে হাজির থাকবেন। ওইদিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও শান্তিনিকেতনে উপস্থিত থাকার জন্য বিশ্বভারতীর পক্ষ থেকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।     এদিন রাজ্যের পরিস্থিতি সম্পর্কে কৈলাস বিজয়বর্গীয়র মতামত জানতে চাইলে তিনি বলেন,  মমতাজী নির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী। অথচ তিনি এমন আচরণ করছেন,  যাতে  মনে  বাংলা দেশের অংশ নয়। এটি একটি পৃথক রাজ্য। উনি রাজা, উনি যা চাইবেন, তাই-ই হবে। বাবা সাহেব আম্বেদকরের সংবিধানের সঙ্গে ওনার কোনও যোগ নেই। এটা দুর্ভাগ্যের। দেশ সংবিধানের উপর ভিত্তি করে চলে। যার  উপরে মমতাজীর  কোনও বিশ্বাস নেই। বাংলার শিক্ষা এক সময়  উৎকৃষ্ট ছিলো। কিন্তু দুর্ভাগ্যের,  এনিয়ে মমতাজী যে রাজনীতি  করছেন, সেটা খুবই চিন্তার বিষয় ।।

   ছবি : উপাচার্যের সঙ্গে কৈলাস বিজয়বর্গীয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *