প্রশাসন

করোনা যোদ্ধাদের পুনরায় লড়তে হচ্ছে মারণ ভাইরাসের সাথে

খায়রুল আনাম ,

 সুস্থ হওয়ার পরেও অসুস্থতায় কোভিড ক্লিনিক রামপুরহাট মেডিকেল
     
বিশ্বমারণ রোগ করোনা প্রতিরোধে ভ্যাকসিন কবে সাধারণের হাতে পৌঁছবে, সেটি বিশ্বের বিজ্ঞানীদের পরীক্ষাগারে গবেষণার বিষয়। রাজনীতির ময়দানে এ নিয়ে যে লাফঝাঁপ তা অবশ্য বিশ্ব-বিজ্ঞানের চর্চার বিষয় নয়।  করোনা প্রতিরোধ ভাবনার মধ্যেই এবার নতুন করে ভাবনার বিষয় হয়ে উঠেছে, করোনা আক্রান্তরা সুস্থ হয়ে ওঠার পরেও, তাঁরা পুনরায় অসুস্থ হয়ে ওঠার ঘটনার মধ্য দিয়ে। যা নতুন করে উদ্বেগে ফেলেছে চিকিৎসকদের। কেননা, মাঠে-ময়দানে বক্তৃতায় তুর্কি নাচন নয়, করোনা যোদ্ধা হিসেবে তাঁদেরই লড়াইটা করতে হচ্ছে এই মারণ ভাইরাসের সঙ্গে।         দেখা যাচ্ছে যে, করোনা সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার পরেও বহু রোগীর মধ্যে  পুনরায় নানা ধরনের শারীরিক সমস্যা দেখা দিচ্ছে।  কারও শুকনো কাশি,  কারও বুকে ব্যথা,  আবার কারও বা শ্বাসকষ্ট দেখা দিচ্ছে। অনেকের অক্সিজেনের মাত্রাও কমে যাচ্ছে। করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার পরে এক মাসের মধ্যে অনেকেই হার্ট  অ্যাটাক বা  অন্য কোনও কারণে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। এদের মধ্যে কেউ কেউ মারাও যাচ্ছেন।আর এই বিষয়গুলি নিয়েই উদ্বেগ বেড়েছে  চিকিৎসকদের মধ্যে এবং  স্বাস্থ্য দফতরের।       এই পরিবর্তিত পরিস্থিতির দিকে দৃষ্টি দিয়ে এবার  বীরভূমের রামপুরহাট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে  চালু করা হচ্ছে  পোস্ট  কোভিড ক্লিনিক। এ বিষয়ে  ভিডিও  কনফারেন্সের মাধ্যমে রামপুরহাট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের  আধিকারিকদের সঙ্গে রাজ্য স্বাস্থ্য ভবনের আধিকারিকদের   আলোচনাও হয়। তারপরই  কলকাতার আর জি কর  মেডিকেল কলেজের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক  পার্থ  কর্মকারের সঙ্গে  রামপুরহাট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ,  এমএসভিপি, ডেপুটি সুপার-সহ  মেডিকেল কলেজের  চিকিৎসকদের সঙ্গে   পোস্ট কোভিড নিয়ে আলোচনা হয়। করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার পরেও যাঁরা পুনরায় অসুস্থ হয়ে পড়ছেন, তাঁদের কীভাবে  চিকিৎসা করা যায় সে ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে।  সেই আলোচনায়  সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে,  কোভিড সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার পরে যাঁদের  হৃৎপিণ্ড,  ফুসফুস ও অন্য অঙ্গ  ক্ষতিগ্রস্ত  হওয়ার ঝুঁঁকি থাকছে,  তাঁদের চিকিৎসার ব্যাপারে  পদক্ষেপ নেবে এই ক্লিনিক। করোনা সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার  পরে তিন মাসের মধ্যে   যাঁঁরা অসুস্থ হয়ে পড়েছেন  তাঁদের আগে চিকিৎসায় অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। পরের ধাপে ছ’মাসের মধ্যে  যাঁরা অসুস্থ হয়েছেন তাঁদের কোভিড ক্লিনিকে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। এভাবে পর্যায়ক্রমে এই চিকিৎসা চলতে থাকবে ।।       

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *