পুলিশ

মাড়গ্রামে নাবালক স্বামীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য

খায়রুল আনাম,

 নাবালক স্বামীর রহস্য মৃত্যু
       
বিয়ের মাত্র আট মাসের মাথায় শ্বশুরবাড়ির  কাছেই  নাবালক স্বামীর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে রহস্য  দানা বেঁঁধেছে।  ঘটনার জেরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে নিয়ে গিয়েছে রামপুরহাট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য।      বীরভূমের  রামপুরহাট মহকুমার মাড়গ্রাম থানার মথুরাপুর গ্রামের হারু মালের (১৯) সঙ্গে মাত্র আট মাস আগে বিয়ে হয়  ওই  থানারই  মিল্কিডাঙা গ্রামের এক নাবালিকার।  এদিন সকালের দিকে  মিল্কিডাঙা গ্রামেই  হারু মালের মৃতদেহ শ্বশুরবাড়ির কাছেই একটি ভাঙা   বিদ্যুতের খুঁটিতে  গলায় দড়ি দেওয়া অবস্থায় ঝুলতে দেখেন গ্রামের মানুষজন। তাঁরাই মাড়গ্রাম থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে নিয়ে আসে ময়নাতদন্তের জন্য। গ্রামের বহু মানুষ ওই সময় ঘটনাস্থলে এলেও, কাছেই মৃতের শ্বশুরবাড়ি হওয়া সত্বেও তাঁর নাবালিকা স্ত্রী বা অন্য কেউ সেখানে আসেননি। মৃতের দিদি পরি মাল জানিয়েছেন, বিয়ের  কিছুদিন পরেই বিশ্বকর্মা পুজোর সময়  ভাইয়ের বউ বাপের  বাড়ি চলে আসে। তারপরই সে জানিয়ে দেয় যে, সে আর স্বামীর কাছে ফিরে যাবে না। তাঁর সাথে সংসারও করবে না।  তাঁর ভাই স্ত্রীকে তাঁর কাছে ফিরে আসার জন্য বহুবার মোবাইল ফোনে অনুরোধ করেছিল। কিন্তু ভাইয়ের বউ জানিয়েই দিয়েছিলো যে, সে আর তাঁর কাছে ফিরে যাবে না। তারই মধ্যে এভাবে শ্বশুরবাড়ির কাছেই ভাঙা বিদ্যুতের খুঁটিতে  ভাইয়ের ঝুলন্ত  মৃতদেহ উদ্ধার হওয়ার ঘটনাটি তাঁর কাছে রহস্যময় লাগছে বলে  মৃতের দিদি মন্তব্য করেছেন। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে না পাওয়া পর্যন্ত পুলিশ এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হয়নি ।।      

 139 12,89,834

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *