স্ত্রী ঈদের শাড়ি না পেয়ে যায় বাপের বাড়ি, স্বামী দিল গলায় দড়ি

পুলিশ

শুক্রবার সকালে মালদার রতুয়ার নিজের ঘর থেকে ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয় স্বামীর। মৃতদেহটিকে উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে স্থানীয় থানার পুলিশ। গোটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রতুয়া থানার পরাণপুরের মালদাপট্টি এলাকায়।

পুলিশি সুত্রে প্রকাশ, মৃত স্বামীর নাম সাদ্দাম মিঞা (২৯)। বাড়ি রতুয়ার পরাণপুরের মালদাপট্টি এলাকায়। আট বছর আগে স্থানীয় এক মহিলার সঙ্গে বিয়ে হয় তাঁর। তাঁদের দুই ছেলেমেয়ে। করোনা সংক্রমণ রুখতে দেশ জুড়ে লকডাউন জারি হতেই লরির ব্যবসা বন্ধ হয়ে যায় সাদ্দামের। ইদের আগে হাতে টাকাপয়সা না থাকায় বেশ চিন্তিত ছিলেন সাদ্দাম। এরই মধ্যে তাঁর স্ত্রী ইদে নতুন জামাকাপড় কিনে দেওয়ার জন্য বায়না ধরে। নতুন জামাকাপড় না পেয়ে বাবার বাড়ি চলে যায় মোস্তারি। আজ সকালে সাদ্দামের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। খবর পেয়ে রতুয়া থানার পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজে পাঠায়৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.