ভিন রাজ্যের পরিযায়ী শ্রমিকরা বাড়ি যাবে কবে?

পুলিশ

জুলফিকার আলি

  • লকডাউনের আগে হলদিয়ায় কাজে এসেছিলেন ঝাড়খণ্ড ও বিহারের শ্রমিকরা। কিন্তু হঠাৎ করোনা ভাইরাসের জেরে দেশে লকডাউন শুরু হয়ে যাওয়ায় বাড়ি ফিরতে পারেননি তারা। এমন পরিস্থিতিতে কাজপাট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অসহায় হয়ে পড়েছেন এই সমস্ত শ্রমিকরা। এমন পরিস্থিতিতে বারবার প্রশাসনের দারস্থ হয়েও বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা না হওয়ায় , হলদিয়া থেকে জাতীয় রাস্তা ধরে হেঁটে হেঁটে ঝাড়খণ্ডের উদ্দেশ্যে পাড়ি  দিচ্ছিলেন তারা। এই খবর পেয়ে সোমবার পথে আটকায় মহিষাদলের পুলিশ। 
    জানা যায়, গত কয়েক মাস আগে হলদিয়ার কুকড়াহাটির একটি ইটভাটাতে কাজে এসেছিলেন ভিন রাজ্যে ঝাড়খণ্ডের প্রায় ২৫ জন শ্রমিক। এমন পরিস্থিতিতে হঠাৎ গোটা দেশে লকডাউন শুরু হয়ে যাওয়ায় তাদের কাজ পাট একেবারে বন্ধ হয়ে যায়। এমন পরিস্থিতিতে ইটভাটার মালিকের পক্ষ থেকে বেশকিছুদিন খাবারের ব্যবস্থা করা হলেও লকডাউন দিনের পর দিন বেড়ে চলায় শ্রমিকদের বাড়ি ফিরে যেতে বলেন মালিক। এমনকি ইনভাটার শ্রমিকদের অভিযোগ, তারা গত কয়েকদিন ধরে না খেতে পেয়ে হলদিয়ার ওই ইটভাটায় ছিলেন। বারবার পুলিশ প্রশাসনকে বাড়ি ফেরার জন্য ব্যবস্থার আবেদন জানালেও কোনো রকম সুরাহা মেলেনি । তাই হলদিয়া থেকে ঝাড়খন্ডে দীর্ঘ পথ হেঁটে পাড়ি দেওয়ার চিন্তা করেন তারা। সোমবার সকালে হলদিয়ার কুকড়াহাটি থেকে তারা পায়ে হেঁটে ঝাড়খণ্ডের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। এমন সময় এভাবে শ্রমিকদের হেঁটে যেতে দেখে মহিষাদল সিনেমা মোড় এলাকায় কর্তব্যরত পুলিশরা তাদের আটকায়। এখানে বেশ কিছুক্ষণ থাকার পর পুলিশের তরফ থেকে তাদের হলদিয়াতে ফিরে যাওয়ার কথা বলা হয়। এমন পরিস্থিতিতে পরিচয় শ্রমিকদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।  পরিযায়ী শ্রমিকরা জানান, “আমরা বারবার পুলিশ- প্রশাসনকে জানিয়েও কোনো সুরাহা হয়নি। এভাবে আমরা আর না খেতে পেয়ে কতদিন থাকবো? পুলিশ প্রশাসনের ওপর আমাদের সম্পূর্ণ আস্থা চলে গেছে”। পরিযায়ী শ্রমিকদের যে যারা রাজ্যের ফিরিয়ে আনার জন্য ইতিমধ্যে সরকারের তরফ থেকে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে তার মাঝেও শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। রাজ্যে পরিযায়ী শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনা নিয়ে বিজেপির অভিযোগ রাজ‍্য সরকার উদাসীন হয়ে রয়েছে। সোমবার সকালে এভাবে হলদিয়া থেকে ঝাড়খন্ড শ্রমিকদের হেটে যেতে দেখে বিজেপির তমলুক সাংগঠনিক জেলার প্রাক্তন সভাপতি প্রদীপ দাস বলেন, “পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে রাজ‍্য সরকার কোনরকম কর্ণপাত করেনি। সেকারণে এভাবে রোদের মধ্যে শ্রমিকদের হেঁটে বেড়াতে হচ্ছে”। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.