লকডাউনে আরও কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি গলসিতে

পুলিশ

সেখ নিজাম আলম

লক ডাউনে গলসি বাজারে ভীড়— লক ডাউন চলছে, নাকি লক ডাউন কেটে গেছে। এমন দ্বিধার মধ্যে পড়তে গেলে আপনাকে যেতে হবে গলসি বাজার। কাপড়ের দোকান থেকে শুরু করে মনোহারি, জুতো ও অন্যান্য সব সব দোকানেই খোলা। আর বাস নাই বা চলল, অন্যান্য যানবাহনের সংখ্যা তো আর কম নেই। কেউ মোটরসাইকেল, কেউ টোটো,কেউ সাইকেল,কেউ মারুতিতে আবার কেউ বা হেঁটে গলসি বাজারে ভীড় করলে মানুষকে ভূলতে বাধ্য হবে যে,এখন লক ডাউন চলছে। প্রতি দোকানেই ভীড় দেখে গলসির কাপড়ের দোকানে (গোবিন্দ) পুলিশ যেতে বাধ্য হন। মালিককে শাসানো হয়,এত ভীড়ে ডিসট্যান্স বজায় না রাখার জন্য। গলসি বাজারে পুলিশ গাড়ীতে প্রচার করছেন ভীড় এড়ানোর জন্য ও দূরত্ব বজায় রাখতে। আর তাদের সামনেই ভীড় দেখে কেই বা না হাসে! কতক মানুষের প্রশ্ন এমনভাবে সব দোকান খোলার অনুমতি কে দিল? স্বাভাবিক বাজারের মতই আজ অসংখ্য মোটরসাইকেলে মানুষের পারাপার করতেও হিমশিম খেতে হয়েছে। বাজার খোলার বিষয়ে পূর্ব বর্ধমান জেলাশাসকের অাদেশপত্র মানুষের কাছে থাকলেও, বর্তমানে সব দোকান খোলার আদেশপত্র মানুষের কাছে পৌছায়নি। এই করোনার থাবা বসানো রুখতে সুষ্ঠুভাবে বাজার রাখতে গলসি পুলিশ কে আরও কড়া নজর

রাখতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.