আন্তর্জাতিক শ্রুতি সম্মেলন করলো রাইটার্স ফোরাম

ক্রীড়া সংস্কৃতি

শ্যামল রায়

দুরাভাষ এ কবি প্রণাম অনুষ্ঠানে ছিলেন বাংলার স্বনামধন্য কবি সাংবাদিক গায়করা।

লকডাউন শুরু হতেই কবি-সাহিত্যিক সাংবাদিকদের মধ্যে মুখোমুখি দেখা হওয়া বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তাই বাংলা রাইটার্স ফোরাম এর উদ্যোগে শুরু হয়েছে শ্রুতি সম্মেলন। এই সম্মেলনে রাইটার্স ফোরাম এর রাজ্যসভা নেত্রী কৃষ্ণা বসুর উপস্থিতিতে নিয়মিতভাবে চলছে কবি সাহিত্যিক গায়ক সাংবাদিকদের নিয়ে সাহিত্য আড্ডা অর্থাৎ শ্রুতি সম্মেলন। সমগ্র পরিকল্পনা এবং সঞ্চালনায় রয়েছেন রাইটার্স ফোরাম এর রাজ্য সম্পাদক তথা কবি ও সাংবাদিক শ্যামল রায়। ইতিমধ্যে বাংলা আসাম ত্রিপুরা দিল্লি বাংলাদেশ থেকেও বহু কবি-সাহিত্যিক টেলিফোন কনফারেন্সের মধ্যে দিয়ে ছুটি সম্মেলনে অংশগ্রহণ করছেন কবিতা পাঠে আলোচনায় এবং সংগীতের মধ্যে দিয়ে। বিভিন্ন দিনে বিভিন্ন সময়ে ইতিমধ্যে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য রয়েছেন বিশিষ্ট কবি কৃষ্ণা বসু কবি কমল দে শিকদার কবি ও সাংবাদিক দেবাংশু চক্রবর্তী কবি ব্রত চক্রবর্তী কবি অরুণ চক্রবর্তী কবি অনীশ ঘোষ কবি মিতা দাসপুরকায়স্থ(শিলচর),
কবি ও গায়ক শুক্লা দাস(আগরতলা) কবি মনীষা কর (দিল্লি), কবি অজয় চক্রবর্তী কবি চন্দনা দেশি না কবি সুনীল মুখার্জী কবি লোপামুদ্রা মুখার্জি কবি শ্রাবণী ঘোষ কবি জয়দেব দত্ত কবি মিলন ভৌমিক কবি শৈলেন্দ্র নাথ চক্রবর্তী কবি সুদেবী চক্রবর্তী বাচিক শিল্পী পিয়ালী পাল, কবি জয়িতা বর্ধন, কবি মন্টু হালদার, কবি পার্থ চট্টোপাধ্যায়, কবি রামকৃষ্ণ রায়, সহ একাধিক কবি সাহিত্যিক সাংবাদিক। কবি দেবাংশু চক্রবর্তী জানিয়ে দিয়েছেন যে এই ধরনের উদ্যোগ প্রশংসার দাবি রাখে এবং বিরলতম ঘটনা যা কিনা আদৌ যেন বন্ধ না হয়। টেলিফোন কনফারেন্সের মধ্যে দিয়ে অডিও-ভিস্যুয়াল ভীষণভাবে মনোযোগ একান্ত সভা করে কবিদের কবিতা পাঠ আলোচনা সংগীত হৃদয় স্পর্শ করছে। কবিতার পাশাপাশি গান যেন আন্তরিক হয়ে উঠছে। বিশিষ্ট কবি কৃষ্ণা বসু জানিয়ে দিয়েছেন যে আমাদের এই ধরনের উদ্যোগ নিরলসভাবে চলবে। এর ফলে কবিতা আরো সমৃদ্ধ হবে সকলের কাছে। তিনি জানিয়েছেন যে কবি সাংবাদিক শ্যামল রায়ের নতুন পরিকল্পনায় নতুনভাবে সম্পৃক্ত হচ্ছেন কবি-সাহিত্যিক সাংবাদিকরা। একদিকে টেলিভিশনের সঞ্চালনা অন্যদিকে কবিতা লেখা তার সিদ্ধহস্ত। আমাদের প্রিয় কবি শ্যামল রায় নতুন ভাবে নতুন উদ্যোগে শ্রুতি সম্মেলনকে আগামী দিন সকল কবি সাহিত্যিকদের কাছে উচ্চশিখরে প্রতিষ্ঠা করবেন এই আশায় আমরা সকলে রইলাম ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে। ইতিমধ্যে সাড়া ফেলে দিয়েছে শুধু বাংলায় নয় ভিন্ন রাজ্যেও।

Leave a Reply

Your email address will not be published.