হাওড়া দ্বারিকা আশ্রমে রবীন্দ্রজয়ন্তী

প্রশাসন

হাওড়া “দ্বারিকা আশ্রম”- পরিবারের সদস্যদের রবীন্দ্র জয়ন্তী পালন

রাজকুমার দাস

আজ কবিগুরুর জন্মদিবস । প্রতিটি বাঙালির নিজের ভাষা, সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে স্মরণ করবার দিন । বাঙালির জীবনে আশা, আকাঙ্ক্ষা, ক্রোধ, ভালোবাসা, ঘৃণা – সবই রবীন্দ্রনাথের কাছে আশ্রয় খোঁজে । তবে যে কবি সকলকে ঘর ছেড়ে মুক্ত আকাশে জীবনকে খুঁজতে আহ্বান জানিয়েছেন, পরিণাম ভেবে দুঃসাহসী হয়ে কাছি ছিন্ন করে উদ্দাম স্রোতে ভেসে যেতে ডাক দিয়েছেন – তাঁর জন্মদিনে আমরা আজ সন্ত্রস্ত, মৃত্যুভয়ে ভয়ার্ত ! এমন পঁচিশে বৈশাখ আমরা আগে দেখিনি । প্রার্থনা করি যেন দেখতেও না হয় কোনোদিন ।আজকের লকডাউনে রবি বন্দনা শুধুই অনলাইনে।তবে হাওড়ার বাজে শিবপুর দ্বিতীয় বাই লেনের “দ্বারিকা আশ্রম”-এর একই পরিবারের প্রায় বত্রিশজন সদস্যরা মিলে কবির ১৫৯তম জন্মদিন পালন করলেন।উদ্যোক্তা ছিলেন মুনমুন ঘোষ,শ্রেয়া বসু ও অনিন্দ্য কুমার ঘোষ।
কবিকে নৃত্যের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জানান পামেলা দত্ত, আবৃত্তি করেন সুমিত দত্ত, শুক্লা সরকার,গান করেন মুনমুন ঘোষ,বাপ্পা দত্ত, মনিকা দত্ত, ঋতুপর্ণা দত্ত, প্রমুখ।গিটারে রবীন্দ্র টিউন বাজিয়ে শোনান টিম্বা।
কে বলবে এই মহামারিতে বাঙালী রবি ঠাকুরকে মনে করেনি!
আশা করি এই পরিবারের কাছ থেকে আমরা নতুন বার্তা পেলাম,ইচ্ছে থাকলে নিজেদের প্রমান করা যায়।যা এই পরিবার করে দেখালো।পেননাম হই গো রবি ঠাকুর,সামনের বছর তুমি আবার এসো- এই বাংলায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.