অন্ডাল বিমানবন্দর ঘিরে মনোরেল গড়ার প্রস্তাবনা মুখ্যমন্ত্রীর

ভিডিও

ভিডিও নিউজ টি দেখতে হলে ক্লিক করুন

মোল্লা জসিমউদ্দিন ও মোহন সিং এর রিপোর্ট

অন্ডাল বিমানবন্দর ঘিরে মনোরেলের ভাবনা মুখ্যমন্ত্রীর

একাধারে যেমন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী কে বাদ দিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার  আজ অর্থাৎ বৃহস্পতিবার কলকাতায় ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রোরেল পরিষেবা চালু করলো, ঠিক সেইরকম পরিস্থিতিতে দুর্গাপুরে সৃজনি পেক্ষাগৃহে প্রশাসনিক বৈঠকে রাঢ় বাংলায় রেল যোগাযোগে গতি বাড়াতে ‘মনোরেল’ গড়ার প্রস্তাবনা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উল্লেখ্য, ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রোরেলের ভাবনাটি ছিল একদা রেলমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েরই।  অন্ডাল বিমানবন্দর ঘিরে যে মনোরেল গড়ার প্রস্তাবনা টি এদিন মুখ্যমন্ত্রী দুর্গাপুরে প্রশাসনিক সভায় তুললেন। তাতে পশ্চিম বর্ধমান জেলার পাশাপাশি সীমান্তবর্তী পূর্ব বর্ধমান, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া জেলাগুলির মানুষ অত্যাধুনিক রেলযোগাযোগে স্বপ্ন দেখা শুরু করলো। দুর্গাপুর থেকে একদিকে পুরুলিয়ার রঘুনাথপুর, আবার দুর্গাপুর থেকে বাঁকড়া সদর অবধি মনোরেল গড়ার প্রস্তাবনা টি রাখেন মুখ্যমন্ত্রী। এটি মুলত অন্ডাল বিমানবন্দর ঘিরে রেল ভাবনা টি বলে জানিয়েছেন তিনি।  গত বুধবার বিকেলে দুর্গাপুরে প্রায় তিন কিমি জুড়ে  এনআরসি বাতিলের দাবিতে মিছিল করেন তৃণমূল সুপ্রিমো।বৃহস্পতিবার বেলা বারোটা নাগাদ দুর্গাপুরের সৃজনি পেক্ষাগৃহে দুই বর্ধমানের অধিকাংশ জনপ্রতিনিধি সহ রাজ্য পুলিশ – প্রশাসনের কর্তাদের নিয়ে ‘মিনি নবান্ন’ বসান মুখ্যমন্ত্রী। সাম্প্রতিক সময়ে ইসিএলের কয়লা খনি সংলগ্ন এলাকায় ধসে মৃত্যুর ঘটনায় ক্ষুব্দ হন মুখ্যমন্ত্রী। সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসীর জন্য কেন্দ্রীয় সরকার কেন হাউজিং করছেনা?  তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেন মুখ্যমন্ত্রী। ইসিএলের অব্যবহৃত জায়গা গুলি পড়ে থাকা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে দেখা যায় মুখ্যমন্ত্রী কে। ইসিএল জায়গা দিলে রাজ্য সরকার হাউজিং গড়ে দেবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। সাথেসাথেই  পশ্চিম বর্ধমান জেলাশাসক কে ইসিএল – ইস্কোদের প্রশাসনিক চিঠি  লেখার নির্দেশ দেন। কাজ না হলে তিনি নিজেই লিখবেন বলে আশ্বাস দেন তিনি। ইতিপূর্বে রাজ্য সরকার ইসিএল এবং ইস্কো কে প্রকল্পের জন্য জমি দিয়েছে বলে দাবি রাখেন মুখ্যমন্ত্রী। কুলটি জল প্রকল্প উদঘাটন করে আসানসোল মেয়র জিতেন্দ্র তেওয়ারি কে রাণীগঞ্জের পানীয় জলাধার দ্রুত করার নির্দেশ দেন। সম্প্রতি দুর্গাপুরে এক কারখানায় ২৯ জন শ্রমিকদের ছাঁটাই এবং নুতন করে ২৯ জন নবাগত শ্রমিকদের অন্তভুক্তিকরণ নিয়ে ঝামেলা মেটাতে শ্রম মন্ত্রী মলয় ঘটক কে দুপক্ষদের নিয়ে বৈঠক করার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। ৩ দিনের মধ্যেই এই শ্রমিক সমস্যা মেটানোর কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী।   কর্মবিনিয়োগ কেন্দ্রে নথিভুক্তদের তাদের কাগজপত্র নবনীকরণ করার পরামর্শ দেন মুখ্যমন্ত্রী, যাতে তারা যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরি পায়। কাঁকসা ব্লক পশ্চিম বর্ধমানের মধ্যে পড়লেও প্রশাসনিক কাজকর্ম প্রায় পূর্ব বর্ধমান জেলায় হয়। এহেন সমস্যা দ্রুত মিটে যাবে বলে আশা করেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী  আসানসোল প্রেসক্লাবের জন্য বিল্ডিং করার নির্দেশ দেন  মেয়র কে। আগামী ১ লা বৈশাখের আগেই যেন প্রেসক্লাবের সব ব্যবস্থা হয়। তাও জানিয়ে দেন তিনি। রান্নার গ্যাসের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জোর করে  ধর্মান্তরিতকরণ বাংলায় করতে এলে তা পুলিশ প্রশাসন কড়া হাতে রুখবে বলে জানান তিনি। বেশকিছু এনজিও সার্ভে করার নামে ব্যক্তিগত তথ্য জানার চেস্টা করছে বলে অভিযোগ তুলেন তিনি। আজকের প্রশাসনিক বৈঠকে মন্ত্রী মলয় ঘটক, মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন, আসানসোল – দুর্গাপুরের দুই মেয়র, আসানসোল পুলিশকমিশনার সহ রাজ্য পুলিশ প্রশাসনের আধিকারিকরা ছিলেন।                        

Leave a Reply

Your email address will not be published.