হাড়োয়ায় উলগুলান দিবস পালন

ক্রীড়া সংস্কৃতি

হাড়োয়ায় উলগুলান দিবস পালন 


বুধবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাড়োয়া মাঝেরাইট এলাকায় (রাখাল পল্লী) পশ্চিমবঙ্গ আদিবাসী চেতনা সমিতি ও সংগ্রামী আদিবাসী মঞ্চের যৌথ উদ্যোগে মহান উলগুলান দিবস উদযাপিত হয়। বর্তমান সময়ে দেশের আদিবাসী দলিত ও সংখ্যালঘু মুসলিমদের অবস্থা নিয়ে আলোচনা হয়।।উপস্থিত প্রগ্রেসিভ ইয়ুথ ফাউন্ডেশনের রাজ্য সভাপতি সিয়ামত আলী বলেন – “দেশের সংখ্যালঘুদের সাথে সাথে আদিবাসীরাও সাংবিধানিক অধিকার থেকেও বঞ্চিত হচ্ছে। বিভিন্ন জায়গাতে মব লিঞ্চিং এর শিকার হতে হয়েছে এই সমস্ত সম্প্রদায়ের মানুষদের কে। বর্তমান দেশের যে অস্থিরতা পরিবেশ তৈরি হয়েছে তা বেশ কয়েক বছর ধরেই  পাওয়া যাচ্ছিল। মানুষের মধ্যে ভেদাভেদ সৃষ্টি করে অসহিষ্ণুতার মধ্য দিয়ে হিংসা ছড়িয়ে বিভেদ তৈরি করা। যা দেশের ঐতিহ্যের বিপরীত। আমাদের দেশ বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য এভাবেই আমরা চলতে শিখেছি”।পীরজাদা জনাব মহিবুল্লাহ হোসাইনী  বলেন – “১৯১৯ সালের ৯ জুন ইংরেজ কারাগারে বিষ প্রয়োগ করে বিরসা মুন্ডা কে মেরে ফেললেও তার উলগুলান আজও চলছে শুধুই ভারতবর্ষে নয় বিশ্বের দেশে দেশে মহাবিপ্লবী বিরসা মুন্ডা তার মতোই বেঁচে আছেন এবং চিরকাল বেঁচে থাকবেন বিশ্বের সংগ্রামী মানুষের মনের মনিকোঠা “। পি ওয়াই এফ এর রাজ্য সম্পাদক শিক্ষাবিদ জাকির হোসেন তিনি আদিবাসীদের ধর্ম সারনা অর্থাৎ প্রকৃতি পূজারী সম্বন্ধে বিস্তারিত ব্যাখ্যা করলেন এবং বর্তমান দেশের পরিস্থিতি নিয়ে বিজেপি সরকারের তুলোধোনা করলেন। সংগ্রামী আদিবাসী মঞ্চের রাজ্য সম্পাদক শিক্ষক সুবোল সরদার বলেন -”  বিরসা মুন্ডা উলগুলান অনেক কিছু জ্বালাতে চেয়েছিলেন’ উলগুলান এর আগুনে জঙ্গল জ্বলেনা শোষিত-বঞ্চিত মানুষের হৃদয় আর রক্ত জ্বলে”। এই সভায় এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবী আখের আলী বৈদ্য, দেবু সরদার, সুকুমার সরদার, মৃত্যুঞ্জয় কুন্ডু, গণেশ সরদার, শুকদেব দাস প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.