সাংবাদিক সদানন্দ দাস প্রয়াণে শোকপ্রকাশ কুমুদ সাহিত্য মেলা কমিটির

প্রশাসন

মোল্লা জসিমউদ্দিন

মারা গেলেন রাজ্যের প্রবীণতম সাংবাদিক সদানন্দ দাস (৮০)। আজ ভোরে তিনি কলকাতার বেহালার এক বেসরকারি হাসপাতালে মারা যান। আজ বিকেলে বর্ধমান শহরে প্রেস কর্নারে তাঁর মৃতদেহ আনা হয় শেষ শ্রদ্ধা জানাবার জন্য। তিনি দৈনিক স্বীকৃতি নামে এক দৈনিক সহ বেশ কয়েকটি সাপ্তাহিক /পাক্ষিক পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন। সেইসাথে মফস্বল সংবাদপত্র সমিতি নামে এক রাজ্যস্তরের সাংবাদিক সংগঠনের কর্মকর্তা ছিলেন। লিটিল ম্যাগাজিনে তাঁর অপরিসীম ভূমিকা রয়েছে। ২০১৭ সালে এহেন ব্যক্তিত্ব কে কুমুদ সাহিত্য মেলা কমিটির পক্ষ থেকে ‘কুমুদ সাহিত্য রত্ন’ সম্মান জানিয়েছি। ব্যক্তিগতভাবে তাঁর সম্পাদিত ‘কৃষি সমবায় পত্রিকা’র প্রতিনিধি স্বরুপ ২০০৭ সালে রাজ্যসরকারের গণমাধ্যম কেন্দ্রে রাজ্যভিক্তিক সাংবাদিকতার প্রশিক্ষণশালায় অংশগ্রহণ করেছি। কলকাতার জীবনানন্দ সভাঘর কিংবা বাংলা একাডেমিতে সাংবাদিক সংগঠনের সভায় প্রায় থেকেছি প্রয়াত সদানন্দ দাসের সাথে। উল্লেখ্য, ‘বাঁকুড়া বার্তা’ পত্রিকার সম্পাদক অশ্বিনী মাহান্তির অকৃত্রিম বন্ধু ছিলেন সদানন্দ বাবু৷ অশ্বিনী বাবুর মারা যাওয়ার পর থেকেই মনভরা থাকতেন সদানন্দ বাবু। প্রয়াত সাংবাদিক রেখে গেলেন দুই পুত্র সহ দুই কন্যা কে। দুই পুত্র জয়প্রকাশ দাস এবং বিজয়প্রকাশ দাস রাজ্যের প্রথম সারির সংবাদমাধ্যমে দীর্ঘদিন সাংবাদিকতায় যুক্ত আছেন।

উনার আত্মার শান্তি কামনা করি।

২০১৬ সালে ৩ মার্চ মঙ্গলকোটের কোগ্রামে কুমুদ সাহিত্য মেলায় কুমুদ সাহিত্য রত্ন সম্মান পেয়ে বক্তব্য রাখছেন সাংবাদিক সদানন্দ দাস

Leave a Reply

Your email address will not be published.