লিপিমাল্য সাহিত্য পত্রিকার শারদীয় সংখ্যা প্রকাশ

ক্রীড়া সংস্কৃতি

জ্যোতিপ্রকাশ মুখার্জি


মহাবিশ্ব সাংস্কৃতিক পরিষদের উদ্যোগে ও মহাবিশ্ব প্রকাশনীর সহযোগিতায় ‘লিপিমাল্য সাহিত্য পত্রিকা’-র শারদীয়া সংখ্যা-২০১৯ প্রকাশ উপলক্ষ্যে (১২/১০/২০১৯) হাওড়ার পাঁচলার ‘গোণ্ডল পাড়া নবীন প্রগতি সেবা সমিতি’-র ট্রেনিং হলে এক সাহিত্য সভা ও জল সংরক্ষণ বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রদীপ জ্বালিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন বিশিষ্ট কবি-সাহিত্যিক তথা সাংবাদিক মুরলি চৌধুরী এবং সভাপতিত্ব করেন মহাবিশ্ব সাংস্কৃতিক পরিষদের সভাপতি গোকুল চন্দ্র সরকার। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কল্লোল বন্দ্যোপাধ্যায়, অশোক অধিকারী, স্বপন নন্দী, সাতকর্ণী ঘোষ, বিকাশ দাশ সহ প্রায় ৬০ জন কবি-সাহিত্যিক এবং বিশিষ্ট চিত্র পরিচালক পতিত পাবন হালদার। বর্ণালী সরকারের উদ্বোধনী সংগীতের পর উপস্থিত কবি-সাহিত্যিকরা কবিতা পাঠ করেন এবং সাহিত্যের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন।জল সংরক্ষণ নিয়ে আলোচনা করেন গ্রামীণ হাওড়ার যৌথ পরিবেশ মঞ্চের পক্ষ থেকে বিশিষ্ট পরিবেশবিদ সায়ন দে।লিপিমাল্য পত্রিকার প্রচ্ছদ এঁকেছে নবম শ্রেণির ছাত্র সাগ্নিক সাউ। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সুষ্ঠুভাবে সঞ্চালনা করেন রাজশ্রী রায়।
লিপিমাল্য সাহিত্য পত্রিকার সম্পাদক দীনেশ সাউ বললেন- নবীন প্রজন্মকে সাহিত্য বিষয়ে উৎসাহিত করার জন্য তিন বছর আগে গড়ে তোলা হয় মহাবিশ্ব সাংস্কৃতিক পরিষদ। তাকে সক্রিয়ভাবে সাহায্য করেন অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মী গোকুল চন্দ্র সরকার।প্রতি বছর তারা লিপিমাল্য পত্রিকার তিনটি করে সংখ্যা প্রকাশ করে থাকেন। পত্রিকার বিষয়বস্তুতেও থাকে অভিনবত্ব – ‘মা’, ‘স্বপ্নের নীলে সবুজায়ন’, ‘বিসর্জন থেকে আবাহন’ ছিল গত তিনটি সংখ্যার বিষয়বস্তু। এবারের বিষয়বস্তু ছিল ‘অসুর যখন জল সংকট’। দেশি-বিদেশি কবি-সাহিত্যিকদের লেখায় সমৃদ্ধ হয়ে ওঠে বিভিন্ন সংখ্যা। ২০১৮ সালে তারা গড়ে তোলেন লিটল ম্যাগাজিন সংগ্রহশালা এবং বিভিন্ন লিটল ম্যাগাজিন প্রকাশকদের একটি করে সংখ্যা দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। এছাড়া সাহিত্য চর্চা ও সাহিত্য বিষয়ক আলোচনার জন্য হাওড়ার জুজারসাহায় গড়ে উঠেছে মহাবিশ্ব সভাগৃহ।
দীনেশ বাবু আরও জানালেন তাঁর স্ত্রী পেশায় শিক্ষিকা রিঙ্কু খামরুই(সাউ) এর জন্যই তার পক্ষে এতবড় মাপের সাহিত্য সভার আয়োজন করা সম্ভব হয়েছে।রিঙ্কু দেবী তাকে শুধু পিছন থেকে উৎসাহ দেন না, সামনে দাঁড়িয়ে সভার আয়োজন করেন।

4 thoughts on “লিপিমাল্য সাহিত্য পত্রিকার শারদীয় সংখ্যা প্রকাশ

  1. আমি অত্যন্ত্য গর্বিত তোমার এই প্রয়াসে , তার থেকে
    অনেক বেশি দুঃখিত তোমার ঐ অনুষ্ঠানে না থাকতে পেরে .👏👏👏👏

  2. Lekhok suchi post korle bhalo hoy.Amar lekha ebar ache kina jani na.Age amar lekha prokahito hoyeche, bhalo maner potrika.

Leave a Reply

Your email address will not be published.