নবমীতে বিধান শিশু উদ্যানে শারদীয় মিলনোৎসব

ক্রীড়া সংস্কৃতি

মোল্লা জসিমউদ্দিন (টিপু)

ছবি গোপাল দেবনাথ


প্রতিবারের মত এবারেও কলকাতার হাডকো মোড় সংলগ্ন বিধান শিশু উদ্যানে শারদীয় মিলনোৎসব আয়োজিত হল। মহালয়ার পর থেকেই পুজোর প্রস্তুতি চলেছে এখানে । অফিসঘরের মূল ফলকে ‘মা দুর্গা’র মণ্ডপসজ্জা ছিল। পশ্চিমবাংলার প্রয়াত জনপ্রিয় মুখ্যমন্ত্রী বিধান চন্দ্র রায়ের যথার্থ উত্তরসূরী সর্বভারতীয় কংগ্রেস নেতা ও শিশুপ্রেমী সমাজসেবী অতুল্য ঘোষ বিপুল আয়তন বিশিষ্ট পরিসর নিয়ে বিধান শিশু উদ্যোন গড়েন। যেখানে শিশুদের মানসিক ও শারীরিক বিকাশের জন্য বিভিন্ন কর্মকান্ড চলে। সাঁতার – ছবি আকা – যোগব্যায়াম এর পাশাপাশি পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত মেধাভিত্তিক অনুশীলন চলে এখানে। বিধান শিশু উদ্যানের সাথে ব্যাংলার বিভিন্ন জগতের বিশিষ্টজনেরা দীর্ঘদিন ধরে যুক্ত রয়েছেন। সাংবাদিক থেকে রাজনীতিবিদ, আবার বিজ্ঞানী থেকে প্রাবন্ধিক। বছরের একটা দিন বিধান শিশু উদ্যান কর্তৃপক্ষ প্রাক্তন পড়ুয়া সহ অভিভাবকদের পাশাপাশি যারা এই সংগঠনে যুক্ত। তাঁদের কে নিয়ে  মিলনোৎসবের আয়োজন করে থাকে। শারদীয়ার নবমীর সারাটা দিন পূন মিলনোৎসব হল এখানে। শতাধিক বিশিষ্টজনদের পাশাপাশি বর্তমান পড়ুয়ারা তাদের অভিভাবকদের নিয়ে আসে। টিফিন – দুপুরের বাঙালিয়ানার মাছভাতের আয়োজন ছিল এবার। এই মিলনোৎসবে এসেছিলেন প্রাক্তন নকশাল নেতা অসীম চ্যাটার্জি, বিশিষ্ট সাংবাদিক মিহির গাঙ্গুলি,  সু পরিচিত প্রাবন্ধিক আব্দুর রউফ, বিড়লা তারামন্ডলের ডিরেক্টর, সাহিত্যিক একরাম আলী প্রমুখ। বিধান শিশু উদ্যানের পরিচালক গৌতম  তালুকদার বলেন   – ” বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপূজায় আমরা আমাদের সাথে যুক্তদের নিয়ে এক মিলনোৎসবের আয়োজন করে থাকি “। নবমীর সকাল থেকে রাত পর্যন্ত শতাধিক বিশিষ্টজনদের দেখা গেল বিধান শিশু উদ্যানে সপরিবারে পুজোর আনন্দ উপভোগ করতে।                                                                                                

Leave a Reply

Your email address will not be published.