অষ্টমীর সন্ধ্যায় মাতোয়ারা মঙ্গলকোটের গনপুর

ক্রীড়া সংস্কৃতি

জ্যোতিপ্রকাশ মুখার্জি


মোবাইল,ডিজে ‘কালচারে’ অভ্যস্ত হয়ে বাঙালি সমাজ যখন নিজস্ব ঐতিহ্যকে ভুলতে বসেছে ঠিক তখনই সুন্দর এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সমৃদ্ধ ‘অষ্টমী সন্ধ্যা’-র স্বাক্ষী থাকল পশ্চিম মঙ্গল কোটের গণপুর গ্রামের বাসিন্দারা। গণপুরের ভট্টাচার্য বাড়ির পুজো উপলক্ষ্যে কোনোরকম পূর্ব প্রস্তুতি বা প্রচার ছাড়াই এই অনুষ্ঠান হয়। নাচ-গান-আবৃত্তি-স্বরচিত কবিতা পাঠ সমৃদ্ধ তিন ঘণ্টার অনুষ্ঠানের সূচনা হয় শিশু শিল্পী অনুষ্কার নৃত্যের মধ্যে দিয়ে। পাপিয়া, মনীষা, রিয়া, স্বস্তিকা, শ্রদ্ধাদের নাচ যেমন দর্শকদের মুগ্ধ করে তেমনি তৃণা, তানেয়া, ঋত্বিকা, রূপমের গান দর্শকরা উপভোগ করে। সাধারণত এই ধরনের অনুষ্ঠানে কবিতা গুরুত্ব পায়না।কিন্তু শ্রদ্ধা, সপ্তর্ষি বা রূপমের ‘অমলকান্তি রোদ্দুর হতে চেয়েছিল’ অষ্টমী সন্ধ্যায় এনে দিল দিনের আলোর ঝলকানি। তুর্য্য মুখার্জ্জীর স্বরচিত কবিতা পাঠ দর্শকদের মুগ্ধ করে। অনুষ্ঠানে সাঁওতালি কন্যা সবিতা, কবিতারা তাদের ঐতিহ্যবাহী সাঁওতালী নৃত্য পরিবেশন করে খুব খুশী। আদিবাসী যুবক সোম-দেবানন্দ, সম্পর্কে পিতা-পুত্র, তাদের নৃত্যশৈলী দিয়ে দর্শকদের মুগ্ধ করে। স্টেজ বা রঙিন আলোর ঝলকানি ছাড়াও যে একটা অনুষ্ঠান রঙিন হয়ে উঠতে পারে তা অবাক বিষ্ময়ে প্রত্যক্ষ করল উপস্থিত দর্শকরা। দর্শক আসনে টানা তিন ঘণ্টা বসে থাকা আসানসোলের সুরজিৎ মুখার্জ্জী বললেন – উপস্থিত না হলে তিনি জানতেই পারতেন না গণপুর গ্রামের পরিবেশ এত সুন্দর এবং এই গ্রামের ছেলেমেয়েরা এত সুন্দর অনুষ্ঠান করে। তিনি মুগ্ধ। প্রসঙ্গত ঐতিহ্যবাহী গণপুর গ্রাম ‘সংস্কৃতির পীঠস্থান’ হিসাবে পরিচিত। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সুন্দরভাবে পরিচালনা করেন প্রেমানন্দ মুখার্জ্জী ও রটু চ্যাটার্জ্জী।
পুজো উপলক্ষ্যে আত্মীয়র বাড়িতে বেড়াতে এসে তানেয়া, মনীষা এই অনুষ্ঠানে গান-নৃত্য পরিবেশন করতে পেরে খুবই খুশী। উদ্যোক্তাদের আন্তরিকতায় তারা মুগ্ধ। সুযোগ পেলে এই ধরনের সুস্থ পরিবেশে আবার তারা অংশগ্রহণের ইচ্ছে প্রকাশ করে ।
ভট্টাচার্য বাড়ির অন্যতম প্রতিনিধি রামমাধব ভট্টাচার্য বললেন – আজকের এই সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় দর্শকদের উপস্থিতি প্রমাণ করল মানুষ সুস্থ সংস্কৃতিকে ভালবাসে, পচ্ছন্দ করে।’দাও ফিরিয়ে দাও সেই অরণ্য’ এর ঢঙে তিনি প্রেমানন্দ-রটুকে গণপুরের অতীত ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে আনার আবেদন করলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.