আমি দুর্গা – তুহিনা সুলতানা

সাহিত্য বার্তা

আমি দুর্গা
তুহিনা সুলতানা

আমি দুর্গা -জগৎজুড়ে করি বিচরণ
বিভিন্ন ভাষায় কথা বলি আমি
দেশ হিসেবে ভেস যায় পাল্টে
ফুটপাত থেকে অট্টালিকায় করি বাস।

আমি দুর্গা- আশ্বিনের অপেক্ষায় থাকি না বসে
তিনশো পঁয়ষট্টি দিনই আগমন আমার
আমি নই কোন মাটির তৈরি প্রতিমা
রক্ত মাংসে গড়াএক আস্ত মানবী আমি।

আমি দুর্গা -গভীর জঙ্গল থেকে কেটে আনি কাঠ
মাথায় থাকে ঝুড়ি আর এক হাতে রামদা
কাঠ কেটে আর পাতা সেলাই করে ভরাই পেট
প্রয়োজনে ওই দায়ে নিধন হয় কত জন্তু।

আমি দুর্গা-সন্ধ্যায় ফিরতি টিউশন পথে
ধরতে হয় বাবা অথবা মায়ের হাত
ফাঁকা রাস্তায় একা একা যাবে না চলা
নতুবা পরদিন লাশ পাবে ঝোঁপের জলায়।

আমি দুর্গা -পড়াশোনা ছাড়িয়ে বাবা-মা
রাণী সাজিয়ে পাঠান শ্বশুরবাড়ি
গা থেকে খোলা যায় একে একে সব গহনা
ঠাঁই হয় বাড়ির কোনার এক ঘরে।

আমি দুর্গা-যার শরীরে আজও কালশিটে দাগ
ঠোঁট ফেটে বেরিয়ে আসে রক্ত, চোখে ঝড়ে জল
কখনো ঝুলতে থাকে বরফ হওয়া দেহ, আবার
কখনো বদ্ধ ঘরে দাউদাউ করে জ্বলে উঠে শরীর।

আমি দুর্গা -বুক বেঁধে করি প্রতিবাদ
রক্তাক্ত দেহ নিয়ে দাঁড়ায় আইনের দরবারে
পাইনা কোন বিচার, ক্ষতবিক্ষত দেহ মনে
ঠাঁই হয় বদ্ধ কারাগারের অন্ধকার ঘরে।

আমি দুর্গা-প্যান্ডেলের একধারে থাকি বসে
কোলের কাছে থাকে লক্ষী,সরস্বতী,কার্তিক,গনেশ
তোমরা ভুলেও চাওনা আমার দিকে ফিরে
আমার মূর্তি সাজিয়ে করো সেখানে দর্শন।

আমি দুর্গা -মাটির পৃথিবীতে ঘুরে বেড়ানো
দুঃখে-সুখে হাসি কান্নায় ভরা এক মানবী
কখনো উঠে যায় পর্বতের চূড়ায়
কখনো ছোঁ মেরে ছুঁয়ে আসি আকাশ।

আমি দুর্গা চাইনা কোটি টাকার বাসস্থান
হিরে জহরত খচিত সোনায় মোড়া গহনা
ফুটপাতে থেকে অট্টালিকার দূর্গাদের জন্য চাই
নিশ্চিন্ত জীবন,বেঁচে থাকার অধিকার
আমি দুর্গা রক্ত মাংসে গড়া এক মানবী।

ছবি ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

Leave a Reply

Your email address will not be published.