নীতিশিক্ষা – জয়া গুহ

সাহিত্য বার্তা

নীতিশিক্ষা
জয়াগুহ

মা শিখিয়েছেন- “অপরের জিনিসে লোভ করা পাপ”।
তাই সেই চেষ্টায় আপ্রাণ, দম বন্ধ হয়ে আসে তবু, তবুও
পাতা উলটে দেখি না পুরনো চিঠি,ধুলোভরা খাম ঝাড়ি না পর্যন্ত।
যদি খুচরো অভিমান বাধ্য করে খুলে ফেলতে,দেখতে, পড়তে সেই লেখা
যা অসম্ভব উন্মাদনায় আছড়ে ভেঙেছিল আমাকে,
ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম কোনো এক সন্ধ্যায় তোমার বুকে।
বিশ্বাস করো ভাবার অভ্যেস ভুলতে চাইছি যত, তত বেশি করে মনে পড়ে যাচ্ছে-
রাত আমাকে ঘুমাতে দেয় না,দিন-দুপুরে বুক চিনচিনে ব্যথায় কাতরাতে থাকি
সবার অলক্ষ্যে।
আমার এ রাজ্যে অনুমতি ছাড়া চোখের জল ফেলা নিষেধ।
আর কেনই বা চোখের জল?
তুমি তো আমার ছিলেনা কখনো।
শুধু কথা, শব্দ, অক্ষর ছিল ভুলের পাহাড় গড়ার।
আর আমার সারা জীবন উৎসর্গ বুঝি সে ভুলের মাশুল দেওয়ার?
তোমার ছবি এঁকে আঙুল বোলানোর অভ্যেস ছিল দেওয়াল জুড়ে,
যেন তোমাকে ছুঁয়ে ফেলছি অবয়বে নয়, অস্তিত্বে।
মা যে বলে “দেহ নশ্বর, আত্মা অবিনশ্বর”
তোমাকে মুছে ফেললে আমি আর আমি থাকি না।
তুমি অন্যের জেনেও তোমার প্রতি হাভাতে লোভ ক্ষত বিক্ষত করে।
অথচ মা শিখিয়েছেন “অন্যের জিনিসে লোভ করা পাপ”,
তাই তো শিকড় উপড়ে পাপস্খলনের অপেক্ষায়।।

Leave a Reply

Your email address will not be published.