হাইকোর্টে শুক্রবারও চলবে রাজীব মামলায় শুনানি

পুলিশ

হাইকোর্টে শুক্রবারও চলবে রাজীব মামলায় শুনানি

মোল্লা জসিমউদ্দিন

টানা তিনদিনের শুনানিতে আইপিএস রাজীব কুমার নিয়ে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারলো না কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি শহিদুল্লা মুন্সির ডিভিশন বেঞ্চ।বাদী বিবাদী পক্ষের আইনজীবীদের জমজমাট সওয়াল-জবাব এর জন্যই এজলাস জমে উঠেছে। তবে এই মামলার সাথে যুক্তেরা ছাড়া বাকিদের এজলাসে ঢোকা নিয়ে ‘নো এন্ট্রি’ অব্যাহত। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে দশটায় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি শহিদুল্লা মুন্সির ডিভিশন বেঞ্চে শুরু হয় শুনানি। তাতে আজও আইপিএস রাজীব কুমারের পক্ষে মেলেনি আইনী রক্ষাকবচ। শুক্রবার সকাল সাড়ে দশটা থেকে পুনরায় চলবে আইপিএস রাজীব কুমারের আগাম জামিনের মামলায় শুনানি।
যদিও মঙ্গলবার কলকাতা হাইকোর্টের এই ডিভিশন বেঞ্চের মামলাকারী আইনজীবীদের প্রতি  পরামর্শ ছিল – আইপিএস রাজীব কুমারের উচিত এই মামলায় আত্মসমর্পণ করা।গত ১৩ সেপ্টেম্বর কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি মধুমতী মিত্রের এজলাসে আইপিএস রাজীব কুমারের দায়ের করা সিবিআইয়ের সমন খারিজ মামলায় রাজীবের উপর থাকা আইনী রক্ষাকবচ তুলে নিয়েছিল। এই ১২ দিনের মধ্যে পাঁচটি এজলাসে এই মামলা ঘুরেছে। প্রথম দিকে বারাসাতের স্পেশাল কোর্ট থেকে ডিস্ট্রিক্ট জাজের কোর্ট। তারপর আলিপুর আদালতে এসিজেম এজলাস থেকে জেলা ও দায়রা বিচারকের এজলাসে। সবেতেই রাজীব কুমারের বিপক্ষে গিয়েছে মামলার রায়দানে কিংবা বিচারকদের পর্যবেক্ষণে । বারাসাতের জেলা আদালতের দুটি এজলাস এই মামলায় এক্তিয়ার নেই বলে কোন রায়দান দেয়নি। আবার আলিপুর আদালতে এসিজেম এজলাসে সিবিআইয়ের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ইস্যুতে মান্যতা না দিলেও আইপিএস রাজীব কুমার কে   গ্রেপ্তারে বাধা নেই বলে জানিয়ে দেয়  । আবার আলিপুরের জেলা ও দায়রা বিচারকের এজলাসে আইপিএস রাজীব কুমারের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করে অবিলম্বে হেফাজতে নেওয়া  উচিত বলে রায়দান ঘটে। এরপরে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি শহিদুল্লা মুন্সির ডিভিশন বেঞ্চে    গত সোমবার গোয়েন্দা প্রধানের স্ত্রী সঞ্চিতা কুমার আইনজীবীর মাধ্যমে আগাম জামিনের আবেদন করে থাকেন। সেই দিনই দ্রুত শুনানি চেয়েছিলেন রাজীবের আইনজীবী। সেই আবেদন খারিজ করে হাইকোর্ট পরামর্শ দেয় – রাজীব কুমার কে আত্মসমর্পণ করার জন্য। গত বুধবার থেকে এই এজলাসে সাংবাদিকদের পাশাপাশি মামলা শোনার আগ্রহী ব্যক্তিদের নিষেধাজ্ঞা জারী হয়। যেমনটি সিবিআইয়ের সমন খারিজ মামলায় বিচারপতি মধুমতী মিত্রের এজলাসে সিবিআইয়ের সওয়াল শুরু হওয়ার সময় রাজীবের আইনজীবীর আবেদনে ঘটেছিল। গত বুধবারেও সেই একই ছবি দেখা যায় কলকাতা হাইকোর্টে  ।  এদিনও আইপিএস রাজীবের পক্ষে আইনী রক্ষাকবচ মিললো না। অর্থাৎ সিবিআই অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করতেও পারে এই আইপিএস কে । আজ অর্থাৎ শুক্রবার সকাল সাড়ে দশটা থেকে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি শহিদুল্লা মুন্সির ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার শুনানি রয়েছে।                                                                                                                                                                  

Leave a Reply

Your email address will not be published.