‘মানবিক’ কলকাতায় অমানবিকের ছবি

প্রশাসন

মোল্লা জসিমউদ্দিন

‘সিটি অফ জয়’ কলকাতা মেতেছে শারদীয়ায়। কোটি কোটি টাকা খরচ করে চলছে দুর্গাপূজার প্রস্তুতির শেষলগ্ন । নেতানেত্রীরা কতটা আপণ তা বোঝাবার জন্য কেউ ‘দিদি কে বলো কর্মসূচি ‘ আবার কেউ কেউ চায়ের মজলিস চালাচ্ছেন। অনেক এনজিও আছে, তারা নাকি মানুষের জন্য কাজ করতে চায়। আসলে সরকারি অনুদান লুট করা এবং চাঁদা তোলার ফন্দিফিকির বলে অনেকেই মনে করেন। কত সমাজকর্মী, কত সমাজসেবী মানুষের বাস এই কলকাতায়। তবুও অনাহারে বস্ত্রহীন ভাবে অর্ধনগ্নতায় কাটায় কেউ কেউ। ঠিক এইরকমই এক ব্যক্তি গত দুমাস ধরে পড়ে রয়েছে কলকাতার বাগমারী কবরস্থানের সামনে প্রতিক্ষালয়ে। গত দেড়মাস – দুমাস আগে এই ব্যক্তি কে দেখে আমার উচ্চশিক্ষিত তথা আভিজাত্য পরিবারের যুবক বলে মনে হয়েছে। দীর্ঘ ২০ বছর সাংবাদিকতা করছি। মানুষ চিনতে খুব একটা ভূল হয়না। যখন প্রথম দেখেছিলাম বছর পঁচিশের এই মানসিক ভারসাম্যহীন যুবক কে। তখন জামা ফুল প্যান্ট সহ জুতো ছিল। তা বর্তমানে নেই। শুধু গোপানাঙ্গ ঢালার জাঙ্গিয়া টি ছাড়া। দিনের পর দিন, রাতের পর রাত কাটছে বাগমারী কবরস্থান এলাকায়। বৃস্টিময় দিনে শীতে যেন ওর মৃত্যু অবধারিত। এত নেতা মন্ত্রী সমাজসেবী এনজিও সবাই বেপাত্তা। মানবিক মহানগরে এহেন অমানবিক রুপ যেন বাস্তব কলকাতার এক টুকরো ছবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.