ক্রীড়া সংস্কৃতি

মুখোশের আড়ালে – রুনা মুখার্জি

মুখোশের আড়ালে
রুনা মুখার্জী

শিক্ষিত ভদ্র সমাজে ঘুরে বেড়াই আমরা।
আমরা যে সভ্য মানুষ।
নিজেকে বাঁচাতে আপনজনকে বলি অপরিচিত ,অপরাধী।
মুখোশ পরে ঘুরে বেড়াই আমরা।
সম্মান হারানোর ভয় আছে না।
পাপ যে বাপকেও ছাড়ে না ।
ভগবান আছে যে উপরে।
মানুষ খুন করে অন্যকে জেলে দেওয়ার হুমকিও দিতে পারি আমরা।
আমরা কি মানুষ !
আমরা কি সম্মানের যোগ্য ! মোটেই না ।
ভালোবাসার নামে প্রতারণা ।
দুদিনের খেলা খেলে চিনতে পারেনা একে অপরকে।
সকলের কাছে ছোট করতে দুবার ভাবে না তারা।
কার বা কি আসে যায় কথা না বলতে পারলে ।
অন্যের ভাগে ভাগ বসিয়ে প্রয়োজন ফুরালে ছুঁড়ে দেওয়া এই আমাদের কাজ।
সবাই ভাবি আমি তো রাষ্ট্রপতির থেকেও বড় ।
সত্যিই কি এই শিক্ষার কোন মূল্য আছে ?
প্রেমিক বা প্রেমিকারা চিঠি পড়ে বলে
বিরক্ত করছে, অথচ দুদিন আগেই পড়ার জন্য পাগল ।
এত শয়তানি বুদ্ধিও থাকে আমাদের মধ্যে ।
এরা মা-বাবাকে কাছে রাখতে ভয় পায়।
কারণ বাবা-মায়ের ভার যে অনেক বেশি ।
রাত জেগে চাঁদের আলোর অপেক্ষা করে এরা ,
অথচ ঘুম পেলে বলে চাঁদকে চাইনি তবু কেন এলো ।
স্বার্থপররা স্বার্থ ছাড়া কি বুঝবে ।
বিশ্বাসের অযোগ্য এরা ।
এরা হলো মুখোশধারী ভয়ঙ্কর মানুষ।
বধু হত্যা করে এরা , কারণ চাহিদা যে আকাশছোঁয়া ।
বাইরে জানতে দিলে হবেনা সম্মান হারাবে না।
আঙ্গুল তো পরের দিকে তোলাই যায় আমরা যে মুখোশধারী মানুষ।
সত্যিই কি সুখী হওয়া যায় অন্যদের দুঃখ দিয়ে।
এ জন্মের পাপের ফল তো এজন্যই ভোগ করতে হয় ।
কারোর ক্ষতি করার চেষ্টা করে আর যাই হোক কখনো সুখী হওয়া যায় না।
সম্মান তো তারাই পায় যারা অন্যকে সম্মান করতে জানে ।
অন্যকে অসম্মান করে মুখোশের আড়ালে থাকলেও তারা কোনদিনই সম্মানের যোগ্য হয় না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *