প্রশাসন

কড়া লকডাউনের বিধিনিষেধ জানুন…

খায়রুল আনাম -সম্পাদক (সাপ্তাহিক বীরভূমের কথা)

পশ্চিমবঙ্গ সরকার কোভিড-১৯ প্রতিরোধে ইতিমধ্যেই সর্বাত্মক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। সেই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের প্রকাশিত নির্দেশিকা ক্রমসংখ্যা 283-CS/2020, তাং-21/07/2020 মোতাবেক আগামী বৃহস্পতিবার (২৩শে জুলাই), শনিবার (২৫ শে জুলাই) এবং বুধবার (২৯শে জুলাই) সকাল ৬টা থেকে রাত্রি ১০টা পর্যন্ত সম্পূর্ণ সুরক্ষা জনিত বিধিনিষেধ (লকডাউন) আরোপ করা হয়েছে।

লকডাউন এর দিনগুলিতে সমস্ত সরকারি-বেসরকারি অফিস, অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান, সবজি বাজার, মাছের বাজার থেকে শুরু করে সব ধরনের বাজার এবং সরকারি-বেসরকারি গণপরিবহন ব্যবস্থা ও অন্যান্য যান চলাচল বন্ধ থাকবে। লকডাউন চলাকালীন যেসব ক্ষেত্রকে সরকারিভাবে ছাড় দেওয়া হয়েছে তার তালিকা নিচে দেওয়া হল:

১) স্বাস্থ্য পরিষেবা এবং স্বাস্থ্যকর্মী ও রুগীদের জন্য সরকারি-বেসরকারি পরিবহন।

২) ওষুধের দোকান।

৩) আইন-শৃঙ্খলা, আদালত, সংশোধনাগার, অগ্নিনির্বাপণ এবং জরুরিকালীন পরিষেবা।

৪) জল, বিদ্যুৎ, নিকাশী এবং সাফাইকার্য।

৫) চলমান প্রক্রিয়াকরণ শিল্প এবং আভ্যন্তরীণ কর্মচারী দ্বারা চালিত কারখানা।

৬) কৃষিকাজ এবং চা বাগানের কাজ ।

৭) অন্ত:রাজ্য এবং আন্ত:রাজ্য পণ্য পরিবহন।

৮) ই-কমার্স এবং সেবি (SEBI) নিয়ন্ত্রিত ক্যাপিটাল ও ডেট মার্কেট পরিষেবা।

৯) খবরের কাগজ, টেলিভিশন, নিউজ পোর্টাল এবং সামাজিক মাধ্যম।

১০) রান্না করা খাবারের হোম ডেলিভারী।

এইদিন গুলি ব্যতীত আগামী কাল থেকে ৩১শে জুলাই পর্যন্ত বাকি দিনগুলি অর্থাৎ ২৪শে জুলাই, ২৬শে জুলাই, ২৭শে জুলাই, ২৮শে জুলাই, ৩০শে জুলাই এবং ৩১শে জুলাই, এই ছয়দিন বীরভূম জেলার অন্তর্গত ৬টি পৌরসভা যথাক্রমে সিউড়ি, সাঁইথিয়া, রামপুরহাট, নলহাটি, বোলপুর এবং দুবরাজপুর এলাকায় দুপুর ৩টে থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত সম্পূর্ণ সুরক্ষাজনিত বিধিনিষেধ (লকডাউন) আরোপিত থাকবে। উক্ত সময়ের মধ্যে উপরে উল্লেখিত দশটি বিষয় এবং বিবাহ সংক্রান্ত অনুষ্ঠান (অনধিক ৫০ জন) ছাড়া অন্য সবরকম কার্যকলাপ বন্ধ থাকবে।এছাড়াও উক্ত দিনগুলিতে কোনো রকম ধর্মীয় বা রাজনৈতিক জমায়েত করা যাবে না।

উপরে বর্ণিত জরুরী, অত্যাবশ্যকীয় পরিষেবা এবং কাজের সঙ্গে যুক্ত নয় এমন প্রত্যেকের জন্য রাত ১০টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত সব ধরনের চলাফেরা কঠোরভাবে নিষিদ্ধ থাকবে।

মাস্ক পরা, দূরত্ববিধি মানা, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ এবং নির্দেশাবলী মেনে চলা প্রত্যেকের জন্য এবং সবসময়ের জন্য কঠোরভাবে প্রযোজ্য।এখন থেকে বাইরের জেলা অথবা রাজ্য থেকে বীরভূমে আগত সমস্ত ব্যক্তিদের সাতদিনের হোম কোয়ারান্টাইন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *