স্কুল থেকে ফিরে দুই বান্ধবীর অস্বাভাবিক মৃত্যু, চাঞ্চল্য পূর্ব মেদিনীপুরে

পুলিশ

স্কুল থেকে ফেরার পর দুই বান্ধবীর অস্বাভাবিক মৃত্যুতে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায় ।

জুলফিকার আলী

এই মর্মান্তিক ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে আসে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার জুনপুট কোষ্টাল থানার হুগলী গ্রামের । কারন, শুক্রবার সন্ধ্যেয় একই গ্রামের একই সময়ে নিজেদের বাড়িতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হয়েছে দশম শ্রেণীর দুই ছাত্রী।
মৃত ছাত্রীরা হল সোনালি কামিলা (১৫) ও দিপালী মান্না (১৬)। তাঁরা মাজিলাপুর হাইস্কুলের দশম শ্রেণীর ছাত্রী। সব থেকে অবাক করা বিষয় হল ! এদিন তাঁরা দু’জনেই স্কুলে পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফিরে আসার পর সন্ধ্যের মুখে এমন চরম সিদ্ধান্ত নিল কেন ? প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে !

স্থানীয় প্রাক্তন প্রধান ও বর্তমান গ্রামপঞ্চায়েতের সদস্য সমর রঞ্জন দাস বলেন এদিন সন্ধ্যে বেলায় দুই ছাত্রী স্কুল থেকে পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি চলে যায় । বেশ কিছুক্ষণ পর পরিবারের লোকেরা তাদের দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুজি শুরু করে । দোতলার খুঁজতে গিয়ে দেখতে পায় , ছাদের ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ আছে । জানলায় উঁকি মেরে দেখতে পায়, ঘরের কড়িতে নিজের গলায় ওড়না দিয়ে ঝুলে আছে । তখন চেঁচামেচি শুরু করলে পাড়ার লোকেরা গিয়ে দরজা ভেঙে উদ্ধার করে । সমর রঞ্জন বাবু আরো বলেন গত কয়েক দিন আগে মৃত সোনালী কামিলার বাবা সুভাষ কামিলা তার কাছে এসে বলে ছিলেন , পাসের গ্রামের এক ছেলে তার মেয়েকে একটি মোবাইল দিয়ে ছিল, আমরা জানতে পেরে ছেলেকে ডেকে বুঝিয়ে সুঝিয়ে মোবাইল ফেরত দিয়েছি । তার পর বেশ কয়েক দিন স্কুলেও জেতে দিনি, বাড়িতে রেখেছি । সন্ধ্যায় পর হঠাত্ শুনতে পেলাম হুগলি গ্রামের ঐ দুই বান্ধবী আত্মহত্যা করেছে । তাদের এত মধুর সম্পর্ক কেন র এরকম করলো ? আবার একই সময় ! তো আমার মনে হচ্ছে এটা ত্রিকোণ প্রেমের ঘটনা। কারণ, নাহলে দুই বান্ধবী একসময় কেন আত্মহত্যা করবে ? পুলিশ এসেছিল বডি উদ্ধার করে কাঁথি মহকুমা হাসপাতালের মর্গে নিয়ে গেছে ।

জুনপুট কোষ্টাল থানার ওসি সঞ্জীব দত্ত বলেন ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে এসে দুই মৃত দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে । কিন্তু পরিবারের তরফ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ জানানো হয় নি । পুলিশ একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজুতদন্ত শুরু করেছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.