প্রশাসন

দক্ষীণেশ্বরে শিশুদের নিয়ে মেডিকেল ক্যাম্প

শুভ ঘোষ ,

পুষ্টিকর খাবার খেলে সতেজ হবে মন,
সুস্থ সবল দেহ হবে যেমন প্রয়োজন।
সুষম খাবার রোগ প্রতিরোধ করবে বহুদূর,
তেমন খাবার খেতে হবে পুষ্টিতে ভরপুর।
যত্ন ছাড়া শিশুর গঠন আস্তে হবে ক্ষয়,
সুস্থ হাসির শিশুর দেহ বড় পরিচয়।

এই সব স্লোগান হলো আমার আপনার ঘরের শিশুদের জন্য, পড়াশুনার সাথে সাথে যাদের চিন্তায় মায়েদের প্রায়ই blood pressure বেড়ে যায় , সাথে শিশুদের মুখের mask ঠীক আছে কিনা, হাতের সাবান দিলো কিনা , আর খাদ্য তালিকাতে vit “C” এর পরিমাণ পর্যাপ্ত কিনা, সেটাও দেখা দরকার। immunity বাড়ানো নিয়ে কথা ।

কিন্তু এই সমাজেই আরেক দল শিশু আছে , যারা ইম্মুনিটি , vit “C” , কি, তা জানে না , অনুভূতিতে আছে শুধু একরাশ খিদের। যাদের অজান্তেই হাতে খিচুড়ি দিয়ে , বা কখনও ছিঁড়ে যাওয়া জামার ফাঁক দিয়ে দেখতে পাওয়া পিঠের শুকনো কালো চামড়ার ছবি উঠে আসে চৌমাথার রাস্তার বড় ব্যানার গুলোতে, কখনও বা সোশ্যাল মিডিয়ার page এ। একটু ভেবে বলুন তো, ঐ বাচ্ছার জায়গায় যদি আমার আপনার বাচ্ছাকে দেখতে পাই? আর যদি আমার আপনার বাচ্ছাকে এইরূপে দেখতে না চাই, তাহলে অন্যের শিশুকে কেন দেখব? হ্যাঁ, দেখতে তো হবেই। মানুষকে তো জানাতে হবে, পিছিয়ে পড়া পরিবারের শিশুরা কতটা খারাপ অবস্থায় আছে। কিন্তু এইসব ছবিগুলো দেখার পর আমি আপনি কি করি?
বড়জোড় একদিন খিচুড়ি খাইয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তার ক্ষুধার্ত চোখের নির্বিক দৃষ্টির ছবি দিয়ে নিজের মাহাত্ম প্রকাশ করি। ” আহারে, কত কষ্ট বাচ্ছাগুলোর ” বলে কিছুক্ষণ শোকপালন করা ছাড়া আমাদের সত্যি কি আমাদের আর কিছুই করার নেই ?
কিন্তু কথাতেই আছে, “ইচ্ছা থাকলেই উপায় হয়”।
তাই দুরাবস্থার ছবি তুলে অনুভূতির সুড়সুড়ি নয়, PETALS পরিবার ঠিক করল পিছিয়ে পড়া শিশুদের স্বাস্থ্যের দায়িত্ব নেবে। কারণ, ” দায়িত্ব ” শব্দটা ভীষণ প্রিয় আমাদের কাছে। পুজোর সময় শিশুদের নতুন জামার ইচ্ছাপূরণ এর দায়িত্ত্ব আজ অনেকে তুলে নিয়েছেন ।তাঁদের সকল কে আন্তরিক কুর্নিশ জানায় PETALS , তাই আমরা না হয় নতুন জামার পরিবর্তে ভিতরের শরীরটার যত্নই নিলাম , কেমন হয়?

শিশুদের শিক্ষার দায়িত্ব PETALS আগেই নিয়েছে। কিন্তু স্বাস্থ্য ? স্বাস্থ্যটা না থাকলে শিক্ষাটা কি করে এগিয়ে যাবে?
তাই দক্ষিণেশ্বর সংলগ্ন জে. টি. ঘাটের কাছে ঠাকুর শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংসদেবের মাহাত্ম্যপূর্ণ একটি স্থান ” শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ মহামন্ডল “। সেখানে অনেক আগে থেকেই Bally Chorus এর পল্লববাবুর বিশেষ সাহচর্যে প্রায় 100 টি পিছিয়ে পড়া শিশুরা আজ নতুন পথ খুঁজে পেয়েছে। তারা শিক্ষার আলো দেখার সাথে সাথে দাঁত মাজতে শিখেছে, পেট ভরে খেতে শিখেছে। কিন্তু এই এলাকার মানুষের আবেদন ছিল স্বাস্থ্য বিষয়ে। আর ঠিক সেই সময়, শিশু চিকিৎসক ডাঃ সুমন পোদ্দার আমাদের জানালেন মেডিকেল ক্যাম্প এর কথা। সাহসটা প্রচন্ড বেড়ে গেল। জানেনই তো, আমরা একটু বেশী সাহসী! ঠিক করলাম, ঐ বাচ্ছাগুলোর দায়িত্ব আমরাই নেব। ডাক্তারবাবুর বিশেষ আগ্রহে আমরা সাহস নিয়ে এগিয়ে গেলাম। 11th Oct 2020 । নিবেদিতা কলোনি এর শিশুদের নিয়ে হতে চলেছে মেডিকেল ক্যাম্প ” শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ মহামন্ডল ” এ। প্রায় 100টি পিছিয়ে পড়া পরিবারের শিশুদের ঐ একদিনের লোক দেখানো মেডিকেল ক্যাম্প নয়, আমরা নিতে চলেছি তাদের সম্পূর্ণ দায়িত্ব। দেখিনা, পারি কিনা! ঈশ্বর সহায় থাকলে সব সম্ভব। ঈশ্বরের কাজ ঈশ্বর করাবেন!
শুধু একদিন Horlicks, Toothpaste র Mask দিয়ে ক্ষান্ত না থেকে নিয়মিত follow up করে শিক্ষার সাথে সাথে ওরা স্বাস্থ্যের দিক থেকেও যাতে সুস্থভাবে গড়ে ওঠে তার সম্পূর্ণ দায়িত্ব আমরা নেব। আগামীদিনে Thank you বললে ওরা যাতে হাসিমুখে আমাদের Welcome বলতে পারে সেটা না হয় একটু চেষ্টা করি!

পল্লববাবু , ডাঃ সুমন পোদ্দারের মত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে যদি একজোট হয়ে পিছিয়ে পড়া শিশুদের নতুন করে স্বপ্ন দেখাতে পারি তাহলেই জানবো আমাদের এই উদ্যোগ সার্থক। হয়তো একদিন ঐ ব্যানারের ক্ষুধার্ত চোখের ছবিগুলো উধাও হয়ে যাবে । তাই চলুন না, আমরা সবাই মিলে ব্যানারে শিশুদের দুঃখের ছবি না দেখিয়ে হাসিমুখের কিছু ছবি তোলার জায়গা তৈরী করে দিই !!!
“জ্ঞানের আলোক দাও হে ভগবান।
বিপুল শক্তি দাও হে ভগবান।
তোমারই দেওয়া জ্ঞানে চিনিব তোমায়,
তোমারই শক্তি হবে কর্মে সহায়। “

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *