২৭ জন মৎসজীবি সহ নিখোঁজ বেশ কয়েকটি ট্রলার

প্রশাসন

গভীর সমুদ্রে ৩ টি ট্রলার ডুবি,নিখোঁজ ১ টি ট্রলার।

সৃজন শীল দক্ষিণ ২৪ পরগনা।

প্রাকৃতিক দুর্যোগে গভীর সমুদ্রে ডুবে যায় ৩ টি ট্রলার এফবি দশোর্ভুজা,এফবি বাবাজী,এফবি জয় যঞ্জীরাজ এবং নিখোঁজ এফবি নয়ন ট্রলারটি।এই নয়ন ট্রলারের ১৬ জন মৎস্যজীবী এখনও নিখোঁজ।ডুবে যাওয়া এফবি দশোর্ভুজা ট্রলারের ৪ জন মৎস্যজীবী কে উদ্ধার করে আশপাশের ট্রলারের মৎস্যজীবীরা।বাকী ১১ জন মৎস্যজীবী এখনও নিখোঁজ।তবে ডুবে যাওয়া এফবি বাবাজী ট্রলারের ১৫ জন মৎস্যজীবী এবং ডুবে যাওয়া এফবি জয় যঞ্জীরাজ ট্রলারের ১৫ জন মৎস্যজীবী কে উদ্ধার করে আশপাশের ট্রলারের মৎস্যজীবীরা।প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে ট্রলার গুলি ডুবে যায় বাংলাদেশের জল পথে হাঁড়িভাঙ্গা চড় এলাকায়।স্থানীয় ও মৎস্যজীবী সূত্রে জানা গিয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার নিখোঁজ ট্রলার গুলি তিনচার দিন আগে গভীর সমুদ্রে মাছ ধরার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।এই ৪ টি ট্রলারে ৬১ জন মৎস্যজীবী ছিল।৪ টি ট্রলারের ৩৪ জন মৎস্যজীবী উদ্ধার হয়।বাকী ২৭ জন মৎস্যজীবী এবং এফবি নয়ন ট্রলারটি নিখোঁজ।এদিকে খবর পেয়ে ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনী বাংলাদেশ উপকূল রক্ষী বাহিনীর সঙ্গে যোগাযোগ করে। ডুবে যাওয়া ট্রলার ও ট্রলারের সমস্ত মৎস্যজীবীদের দ্রুত উদ্ধার করে ভারতে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের কাছে অনুরোধ করে।এছাড়া বাংলাদেশের হাঁড়িভাঙ্গা চড় এলাকায় ৩ টি ট্রলার ডুবে যায় এবং ১ টি ট্রলার নিখোঁজ।৪ টি ট্রলারে ৬১ জন মৎস্যজীবী ছিল।আশপাশের ট্রলারের মৎস্যজীরা ৩৪ জন মৎস্যজীনবীকে উদ্ধার করে।বাকী ২৭ জন মৎস্যজীবী নিখোঁজ। এ বিষয়ে ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনী বাংলাদেশ উপকূল রক্ষী বাহিনীর সঙ্গে যোগাযোগ করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.