কাঁথিতে বাম শ্রমিক সংগঠনের সভা

রাজনীতি

জুলফিকার আলি,

কাঁথি শহরে উত্তর দারুয়ার মনসাতলা অফিসে সি,অাই,টি,ইউ- র উদ্যোগে কাজুশিল্পের সঙ্গে যুক্ত শ্রমিকদের নিয়ে কনভেনশন অায়োজিত হয়।কনভেনশনে সভাপতিত্ব করেন শ্রমিকনেতা সেক সামসুদ্দিন। বক্তব্য রাখেন সি,অাই,টি,ইউ নেতা হরপ্রসাদ ত্রিপাঠী, কানাই মুখার্জী, মামুদ হোসেন প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। বক্তারা বলেন অাজকের দিনে সরকারী নীতির কারনে জেলার কাজু শিল্প যেমন একদিকে সঙ্কটে, ততোধিক সঙ্কটে কাজুশিল্পের সঙ্গে যুক্ত শ্রমিকেরা।অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের সমস্ত সুযোগসুবিধা প্রদান সহ মজুরি বৃদ্ধি,উৎসব অনুদান,গৃহনির্মাণ প্রকল্পের অাওতায় অানা সহ চিকিৎসা বীমায় অন্তর্ভুক্ত করা ইত্যাদি দাবীতে পূজোর অাগেই সহকারী লেবার কমিশনারকে ডেপুটেশন ও স্মারকলিপি প্রদানের সিদ্ধান্ত কনভেনশনে গৃহীত হয়।বক্তব্য রাখতে গিয়ে মামুদ হোসেন বলেন যে রাজ্যের শ্রমমন্ত্রী জাকির হোসেন নিজেই একজন শিল্পপতি তাঁর কাছ থেকে শ্রমিকসমাজ কি কল্যাণ অাশা করতে পারে।মামুদ হোসেন অারও বলেন রাজ্য সরকার এখন ঋণফাঁদে অাবদ্ধ।রাজ্যের অর্থনীতি দেউলিয়ায় পরিনত।২০১১ সাল পর্যন্ত রাজ্যের ঋণের মোট পরিমান ছিল ১লক্ষ ৮৭ হাজার কোটি টাকা।গত ৮ বছরে তৃণমূল কংগ্রেস পাইয়ে দেওয়ার রাজনীতির নামে ভোট ব্যাঙ্ক পরিপুষ্ট করতে গিয়ে বাজার থেকে যথেচ্ছ ঋণ করতে গিয়ে মোট ঋণের পরিমান এবছরই ৪লক্ষ ৩২হাজার কোটি টাকার রেকর্ড ছঁয়েছে।অথচ বিদায়ী অার্থিক বছরে মদ বিক্রি ও বিদ্যুতের মাশুল বৃদ্ধি করে রাজ্য ৬গুণ রাজস্ব বৃদ্ধি ঘটেছে।যেখানে ঋণ শোধের জন্য প্রয়োজন ছিল ৪৭ হাজার কোটি টাকা সেখানে খেলা,মেলা,মোচ্ছব, দানখয়রাতি করতে গিয়ে এবছরই ঋণ করেছে ৭৯,৮০০ কোটি টাকা।রাজ্যের মোট সম্পদের ৩শতাংশ পর্যন্ত বাজার থেকে রাজ্যের ঋণ নেওয়ার উর্ধসীমা ছুঁই-ছুঁই।রাজ্যকে রক্ষা করতে শ্রমিক,কৃষক,মেহনতী মানুষ ও বেকারদের নিয়ে সকলকে গনঅান্দোলনে সামিল হতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.