রক্তদান জীবনদান, এই বার্তা দিতে রাজ্য চষছে দিনমজুর

প্রশাসন

রক্তদান জীবন দান” এই বার্তা নেই রাজ্যে জুড়ে প্রচার চালাচ্ছেন দিনমজুর জয়দেব

মানস দাস,মালদা : “স্বেচ্ছায় রক্ত দিয়ে রোগীদের প্রাণ বাঁচান, রক্তদান জীবন দান” এই বার্তা নেই গোটা রাজ্যে সাইকেল চালিয়ে প্রচার শুরু করেছেন কলকাতার এক দিনমজুর। রোজগারের সমস্যা থাকলেও নাগরিক হিসাবে আগে মানুষকে সচেতন করা  তার প্রথম কর্তব্য বলে জানিয়েছেন জয়দেব রাউত। তার কথায় ,‘‌সামাজিক কাজের মধ্যে নিজেকে নিয়োজিত করতে চান। রক্তদান নিয়ে মানুষকে সচেতন হওয়ার ব্রত নিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়েছি।’‌ ৪৯ বছর বয়সেই রীতিমতো তিনি প্রাণোজ্জ্বল। এবার তিনি সাইকেলে কলকাতা থেকে দার্জিলিংয়ের মিরিক পর্যন্ত প্রচার চালাবেন। হুগলির চাঁপদানি গ্রামের বাসিন্দা জয়দেব ৫ জুন কলকাতার বারাসাত থেকে যাত্রা শুরু করেন। মঙ্গলবার কালিয়াচকে পৌছায়। সেখানে কালিয়াচকে নতুন আলোর সংস্থার পক্ষ থেকে  সংবর্ধনা জানানো হয়। ফুলের তোড়া, মিষ্টান্ন, মালা দিয়ে তাকে বরণ করা হয়। 
মালদার কালিয়াচকের বিপুল উৎসাহ ও  সংবর্ধনা পেয়ে আপ্লুত জয়দেববাবু বলেন আমি খুব খুশি, কালিয়াচকের সংবর্ধনা পেয়ে। বিভিন্ন স্থানে আমাকে সংবর্ধনা জানাচ্ছেন। আগামী ২২ জুন পৌঁছে শেষ হবে এই সাইকেল যাত্রা। ১৮ বছর হলে রক্তদানের উদ্বুদ্ধকরণের জন্য এই যাত্রা শেষ হবে দার্জিলিংয়ের মিরিকে। 
এদিন কালিয়াচকে দাঁড়িয়ে  বলেন, আমি কালিয়াচকের যুবকদের সংবর্ধনায় আপ্লুত এদিন যুবকরা রাউতকে  নিয়ে যান হাসপাতালে। সেখানে জয়দেব রাউত উপস্থিত রোগীর আত্মীয় পরিজনদের কাছে রক্তদানের উদ্বুদ্ধকরণে কথা বলেন ও যুব সমাজকে বার্তা দেন।প্রসঙ্গত উল্লেখ্য,  গত অক্টোবর মাসে তেরো টি স্টেট সফর করেছিলেন। প্রায় সাত থেকে আট হাজার কিলোমিটার যাত্রা করেছেন এই সাইকেলে চড়ে বলে জানান রাউতবাবু। জুট মিলের একজন কর্মী তিনি। নো ওয়ার্ক নো পে ছুটি নিয়ে এই মহতী পদযাত্রা শুরু করেছেন। গত বছর ৫ অক্টোবর থেকে তিনি বিভিন্ন রাজ্যে রক্তদান নিয়ে সাইকেলে প্রাচারে বের হন। কলকাতা, দিল্লি, মুম্বাই পর্যন্ত প্রায় ৭ হাজার কিলোমিটার রাস্তা পরিক্রমা করে চলতি বছরের ৭ মে যাত্রা শেষ করেন। এরপর আবার ৫ জুন ফের বেরিয়ে পড়েন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.