পুলিশ

বরাত জোরে শ্বশুরবাড়ি হত্যা ষড়যন্ত্র থেকে বাঁচলো লাভপুরের বধূ

খায়রুল আনাম ( বিপাশা আর্ট প্রেস ),

পুড়িয়ে মারার আগেই শ্বশুরবাড়ি থেকে পালিয়ে বাঁচলেন গৃহবধূ
         
সম্বন্ধ করে বিয়ের তেরো বছরের বিবাহিত  জীবনে দুই পুত্র সন্তানের জননী হওয়ার পরেও,  শ্বশুরবাড়িতে নিত্য দিনের শারীরিক ও মানসিক যন্ত্রণা নিয়ে বাঁচতে হয়েছে এক গৃহবধূকে। এবার শ্বশুরবাড়িতে ওই গৃহবধূকে প্রথমে বেধড়ক মারধর করে প্রথমে তাঁর মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে প্রাণে মারার চেষ্টা হয়। কিন্তু তা সম্ভব না হওয়ায় ওই গৃহবধূর গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে  তাঁকে পুড়িয়ে  চেষ্টা হয় বলে ওই গৃহবধূর অভিযোগ। ওই গৃহবধূ কোনক্রমে প্রাণ বাঁচিয়ে পালিয়ে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন বাপের বাড়িতে।  সমগ্র  বিষয়টি  তিনি লিখিতভাবে পুলিশকে জানিয়ে  আইনি সাহায্য চেয়েছেন।       বীরভূমের লাভপুর থানার  দিঘিরপাড়া গ্রামের মহাদেব পাঠকের ছেলে  সহদেব পাঠকের সঙ্গে তেরো বছর আগে সম্বন্ধ করে বিয়ে হয় ওই থানারই ষষ্ঠীনগর গ্রামের ওই গৃহবধূর। এই দম্পতির দু’ টি পুত্র সন্তানও রয়েছে। শ্বশুরবাড়িতে নিয়মিত ওই গৃহবধূর উপরে শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করা হতো বলে অভিযোগ। এবার ওই গৃহবধূকে শ্বশুরবাড়ির লোকজন  প্রথমে বেধড়ক মারধর করার পরে প্রথমে তাঁর মুখে বালিশ চাপা দিয়ে মারার চেষ্টা হয়।  ওই গৃহবধূ কোনক্রমে নিজেকে বাঁচিয়ে নেয়। আর তারপরই তাঁর গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে তাঁকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা হয়। ওই গৃহবধূ কোনক্রমে শ্বশুরবাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন  বাপের  বাড়িতে। তারপরই তিনি স্বামী-সহ শ্বশুরবাড়ির লোকজনদের বিরুদ্ধে  লাভপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিশ সমস্ত বিষয়টি খতিয়ে দেখছে বলে জানা গিয়েছে ।।          

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *