চার বাংলাদেশী জলদস্যু গ্রেপ্তার

পুলিশ

গভীর সমুদ্রে বাংলাদেশী জলদস্যুদের হাতে মৎস্যজীবি আক্রান্ত হওয়ার আগে গ্রেপ্তার।

সৃজনশীল ঃদক্ষিণ ২৪পরগনা।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বারাইপুর থানার পুলিশ (এস ও জি) খবর পায় একটি বাংলাদেশি দস্যুদল স্থানীয় দুষ্কৃতীদের সঙ্গে কুলতলী এলাকায় ঢুকেছে এবং সুন্দরবনের নদী পথে মাছ কাঁকড়া ধরতে যাওয়া মৎস্যজীবীদের নৌকায় ডাকাতি করার উদ্দেশ্যে তারা বার হবে।
রবিবার ভোররাতে বাংলাদেশি দস্যুদলটি কুলতলী থানা এলাকার গোপালগঞ্জ পঞ্চায়েত ঘাটে (মাতলা নদী) অপেক্ষা করছিল। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বারুইপুর পুলিশ জেলার স্পেশাল অপারেশন গ্রুপ (এসওজি) ও কুলতলী থানার পুলিশ গোপালগঞ্জ পঞ্চায়েত ঘাটটিকে ঘিরে ফেলে। সেখান থেকে ৪ জন বাংলাদেশি দস্যুকে গ্রেপ্তার করতে পারলেও, আরও ৩-৪ জন বাংলাদেশি জলদস্যু সেখান থেকে অন্ধকারের সুযোগ নিয়ে পালিয়ে যায়। গ্রেফতার ৪ বাংলাদেশী দস্যুর কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে ৪ টি লং পাইপ গান, ২ টি শর্ট পাইপগান এছাড়াও ১৮ রাউন্ড তাজা কার্তুজ।
ধৃত চার বাংলাদেশি জলদস্যুর নাম আকবর আলি গাজি , আশিকুর রহমান,ইসমাইল সরদার ও আনোয়ার হোসেন সরদার। আর এদের বাড়ি বাংলাদেশের সাতক্ষীরা ও যশোর জেলায়। পুলিশ সূত্রে খবর তারা একটি বোটের জন্য অপেক্ষা করছিল। যেটা কুলতলীর স্থানীয় দুষ্কৃতীরা নিয়ে আসছিল। সেই বোটে করেই তারা মৎস্যজীবীদের নৌকায় ডাকাতি করার পরিকল্পনা করেছিল। স্থানীয় দুষ্কৃতী এবং পালিয়ে যাওয়া বাংলাদেশি দস্যুদের খোঁজে চিরুনি তল্লাশি শুরু করেছে কুলতলী থানার পুলিশ ও বারুইপুর পুলিশ জেলার স্পেশাল অপারেশন গ্রুপের সদস্যরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.