মাওবাদী অধ্যুষিত এলাকায় ব্যাপক নজরদারি বাঁকুড়া পুলিশের

পুলিশ

শুভদীপ ঋজু মন্ডল;- বাঁকুড়া।:- কয়েকদিন আগে লোকসভা ভোটকে কেন্দ্র করে বাঁকুড়া জেলা পুলিশের উদ্যোগে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে অন্যান্য জেলার সাথে সীমান্তবর্তী বিশেষ বিশেষ জায়গা গুলোতে নাকা চেকিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বিশেষ করে জঙ্গলমহলের বিভিন্ন প্রান্তে অন্য জেলার সাথে সড়ক যোগাযোগ এর মূল সংযোগকারী জায়গাগুলোতে সিসিটিভি বসানো হয়েছে, এবং চেকিং চলছে জোরকদমে। এতে রেহায় পায়নি মোটরবাইক ও ছোট গাড়ি ও, তাছাড়া সরকারি ও বেসরকারি বাস গুলোকে থামিয়ে তল্লাশি শুরু করছে চেকিং এ থাকা দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশকর্মীরা। জেলার বিভিন্ন প্রান্তে নানা রকম বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধার হয়েছে এর ফলে। যেমনই বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধার হয়েছে তেমনি আজ জঙ্গলমহলের সারেঙ্গা থানা ও পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার গোয়ালতোড় থানার সংযোগকারী সীমান্তবর্তী এলাকার কাঁড়ভাঙ্গা গ্রামের কাছে নাকা চেকিংয়ে থাকা পুলিশ কর্মীরা একটি বেসরকারি বাস থেকে প্রায় ১০ কেজি পোস্তর খোলা উদ্ধার করে.। তবে এই পোস্তরখোলার মালিককে পুলিশ ধরতে পারেনি। উল্লেখ্য বাসটি আজ সকালে মেদিনীপুর জেলার আনন্দপুর থেকে বাঁকুড়ার খাতড়া আসছিল। এ প্রসঙ্গে সারেঙ্গা থানার আইসি অভিজিৎ দাস বলেন আমরা রুটিন করে বিভিন্ন গাড়ি তল্লাশি চালাচ্ছি।এই ভোটের প্রাক্কালে প্রতিদিনের মত আজকেও তল্লাশি চালাতে গিয়ে এই বস্তাটি দেখতে পায় পুলিশকর্মীরা তাতে সন্দেহ হয়।। সন্দেহ হওয়াতে বস্তা নামিয়ে দেখা হয় তাতে পোস্ত খোলা রয়েছে।এগুলো নেশাদ্রব্য হিসাবে ব্যবহৃত হয়। এই এলাকাটি একসময় মাওবাদীদের মুক্তাঞ্চল ছিল বলে তিনি জানান, তাই এই এলাকাটিতে বিশেষ নজরদারি ব্যবস্থা করা হয়েছে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে। এছাড়া সম্প্রতি গোয়ালতোড়ে মাওবাদী সন্দেহে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাই এই স্পর্শকাতর এলাকায় বিশেষ নজর রাখছে জেলা পুলিশ।আর এর মাঝে এই নেশাদ্রব্য উদ্ধার হওয়ায় দায়িত্ব আরো বেড়ে গেল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.