কেন্দ্রীয় প্রকল্প আয়ুস্মান কেন বন্ধ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী, তা জানালেন নিজেই

প্রশাসন

সুভাষ মজুমদার,

ভারত সরকারের গাফিলতিতেই কাশ্মীরে জওয়ানদের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার তারকেশ্বরে মাটি উৎসবের উদ্বোধনে এসে পুলওয়ামাকান্ড নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে এভাবেই বিঁধলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন দুপুর তিনটে নাগাদ মুখ্যমন্ত্রীর হেলিকপ্টার নামে তারকেশ্বরে। সেখান থেকে সোজা চলে আসেন মাটি উৎসবের মঞ্চে। মঞ্চে উঠে এদিন তিনি প্রথমেই সিঙ্গুর প্রসঙ্গ তোলেন। তিনি বলেন সিঙ্গুরের জমি রাজ্য সরকার ফিরিয়ে দিয়েছে পাশাপাশি যতদিন তারা জমি পায়নি ততদিন তাঁদেরকে চাল ও আড়াই হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে। এরপর তিনি রাজ্যে বিভিন্ন সময়ে করা উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরেন। পাশাপাশি স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের উপকারিতা তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন কেন্দ্রীয় সরকার আয়ুষ্মান ভারত নাম একটি প্রকল্প চালু করেছে। যেই প্রকল্পের কার্ডে রয়েছে বিজেপির প্রতিক। সেই প্রকল্পে আমাদের টাকা রয়েছে। কিন্তু আমরাই সেটা জানতাম না। আমাদের রাজ্যে সেই প্রকল্প বাতিল করে দিয়েছি। তবে চিন্তা নেই। আপনাদের স্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে আমরা স্বাস্থ্য সাথী চালু করছি। রাজ্যের মোট সাড়ে সাত কোটি মানুষ স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় আসবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন প্রত্যেক পরিবারে মহিলারাই এই কার্ডের অভিভাবক হিসাবে গন্য হবেন। কারন মহিলার বিয়ে হয়ে গেলে তার ছেলে-মেয়ে পরিবার সহ তাঁর নিজের মা-বাবাও স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় থাকবেন। স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পে ন্যুনতম ১.৫ লক্ষ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত চিকিৎসার সুবিধা পাবেন। এরপরই তিনি পিছন থেকে সরকারি অফিসারদের সরে যেতে বলে কেন্দ্রীয় সরকার তথা বিজেপিকে দোষা শুরু করেন। তিনি বলেন সরকার চাইলে পুলওয়ামাকান্ড রুখতে পারতেন। এখন কিছু মানুষ হয়েছে যারা দাঙ্গার রাজনীতি করছে। চারিদিকে হিংসা ছড়াচ্ছে। কেউ যেন গুজবে কান না দেয় সেবিষয়েও তিনি সকলকে সতর্ক করেন। পাশাপাশি তিনি বিজেপি ও আরএসএসকে বলেন ওরা ভোটের কোকিল সারা বছর ওদের দেখা মেলা ভার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.