মঙ্গলকোটে সুফি দিবস পালন,

 পারিজাত মোল্লা , মঙ্গলকোট ;,


একদা সুফিবাদের পীঠস্থান মঙ্গলকোটে পালিত হলো সুফি দিবস। গত শনিবার পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোট গ্রামে জহর মিশনে  ‘ভারতীয় সমাজে’র পক্ষ থেকে বছরের প্রথম দিনে সুফি দিবস উদযাপন উপলক্ষে সম্প্রীতি সভা ও কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এই মহতী সভা ও কর্মশালায় পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে গুণীজনরা যোগদান করেন।  সৌভ্রাতৃত্ব বজায় রাখতে সুফি দিবসের গুরুত্ব আলোচনা করে বক্তব্য রাখেন জনাব মাওলানা মোবারক করীম।  সভার সূচনা পর্বে বক্তব্য রাখেন  জনাব জাহেদ আহমদ সাহেব।জনাব মাসুদুজ্জামান লিটু সাহেব, আলহাজ্ব নাসির উদ্দিন সাহেব এবং আইনজীবী মাসুদ করিম  প্রমুখ ছিলেন ।সুফিবাদের গুরু রহস্য ও সুফি ভাবনার ওপারে নিয়ে বিস্তারিত  আলোচনা হয় এবং সমস্ত আগত প্রতিনিধিদের ধন্যবাদ দিয়ে এই মহতী সভা ও কর্মশালার পরিসমাপ্তি ঘোষণা করেন কলকাতা হাইকোর্টের  আইনজীবী মাসুদ করিম সাহেব।উল্লেখ্য, মুঘল সম্রাট শাহজাহান বাদশার শিক্ষা ও দীক্ষা গুরু হামিদ বাঙালির কবরস্থান এই এলাকাতেই। সূদুর পারস্য থেকে পায়ে হেঁটে এই মঙ্গলকোটের আঠারো অলি এর টানে এসেছিলেন আব্দুল হামিদ দানেশখন্দ।যিনি পরবর্তীতে বাংলা ও বাঙালি কে ভালোবেসে হামিদ বাঙালি নামে পরিচিতি পেয়েছেন আপামর দেশবাসীর কাছে।পরবর্তীতে মুঘল আমলে শিক্ষা ও দীক্ষা গুরু ছিলেন। এমনকি সুফিসাধক হামিদ বাঙালির গুরুভক্তির  টানে মুঘল সম্রাট শাহজাহান বাদশা দিল্লি থেকে রাজকীয় ভাবে না এসে পায়ে হেঁটে আসেন এই মঙ্গলকোটেই। সুফিবাদের একদা পীঠস্থান ছিল পূর্ব বর্ধমান জেলার এই মঙ্গলকোট। সেই মঙ্গলকোটে প্রতিবছর ১ লা জানুয়ারিতে জহর মিশনে পালিত হয় সুফি দিবস। ভারত ও বাংলাদেশ থেকে সুফিবাদে বিশ্বাসী গুণীজনরা আসেন এই মঙ্গলকোটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.