ক্রীড়া সংস্কৃতি

পশ্চিম বর্ধমান জেলা জুড়ে প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর জন্মদিন পালন

আজ জেলা সহ বিভিন্ন জায়গায় পালন করা হল ভারতের সপ্তম প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর ৭৬তম জন্মদিন।

কাজল মিত্র

:-পশ্চিমবর্ধমান জেলার আসানসোলে বৃহস্পতিবার লকডাউনের দিনে রাজীব গান্ধীর জন্ম জয়ন্তী পালন হল আসানসোলে কংগ্রেস নেতা প্রসেনজিৎ পুঁইতান্ডির নেতৃত্বে
প্রথমে রাহালেন মোড়ে রাজীব গান্ধী মূর্তিতে মাল্যদান করা হয়। এরপর জাতীয় কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ে এদিনটিকে পালন করা হল লকডাউনের বিধি নিষেধ মেনেই।
আজ এইমাসের তৃতীয় লকডাউন
তাই সম্পুর্ন রূপে দোকানপাট সহ সবকিছুই বন্ধ রয়েছে ।কিন্তু জেলা কংগ্রেস কমিটির সম্পাদক শাহিদ পারভেজ এর উদ্যোগে পালিত হল দেশের সপ্তম তম প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর জন্মদিন।এদিন শাহিদ পারবেজ
জানান যে ১৯৪৪ সালের ২০ আগস্ট জন্ম হয় আমাদের দেশের সপ্তম প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর ।
প্রতিবছর এই দিনটি ভারতের জাতীয় কংগ্রেস এর পক্ষ থেকে সাড়ম্বরের সাথে পালন করা হয় ।কিন্তু এবছর করোনা প্রবাহের কারনে আজকে লকডাউন তাই প্রশাসনের নিয়ম মেনেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে
আজকে রাজীব গান্ধীর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করে পুষ্পার্ঘ নিবেদনের মধ্যে দিয়ে এই দিনটি পালন করা হয়।তিনি রাজীব গান্ধীর সম্পর্কে বিস্তারিত
ভাবে জানাতে গিয়ে বলেন রাজীব গান্ধী একমাত্র প্রধানমন্ত্রী যিনি মাত্র ৪০ বছর বয়সে প্রধানমন্ত্রী হয়ে দেশের যুবকদের উদ্বুদ্ধ করেন। আজকে যে সবার হাতে হাতে মোবাইল ও কম্পিউটার দেখছেন সেগুলি উনার অবদান যার কারনে বহু বেকার যুবক বেকারত্ব থেকে দূরে সরেছে। কম্পিউটার ছাড়াও তিনি জাতীয় সড়ক যোজনা ও পঞ্চায়েত ব্যাবস্থার সূচনা করেন ।ভারতকে ‘ডিজিটাল’মুখী করে তোলার ক্ষেত্রে রাজীব গান্ধীরই একমাত্র অবদান ।যদিও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তার এই অবদানকে কাজে লাগিয়ে দেশকে ডিজিটাল করতে চলেছে।
প্রসেনজিৎ বলেন, এই ধরনের অস্থায়ী লকডাউন করে খুব একটা সুরাহা হবে না তিনি দীর্ঘস্থায়ী লকডাউন এর পক্ষে সওয়াল করেন এবং অনুষ্ঠানএর মধ্যে দিয়ে রাজ্য ও কেন্দ্রএর তীব্র সমালোচনা করেন।
এদিন এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবর্ধমান জেলার কার্যকারী সভাপতি প্রসেনজিৎ পুঁইতন্ডি,জেলা যুব সভাপতি সৌভিক মুখার্জি,গৌরব রায়, পারভেজ খান,সহদেব জোহার,মামন রশিদ,বাবন লায়েক ,সহ অনেকেই ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *