প্রশাসন

বিধান শিশু উদ্যানের দুর্গাপূজা ১৪ বর্ষে পড়লো

গোপাল দেবনাথ : কলকাতা, ১৪ অক্টোবর ২০২১। প্রয়াত জননেতা অতুল্য ঘোষ এর কল্পনা দ্বারা সৃষ্ট শিশুদের জন্য স্বপ্নের উদ্যান “বিধান শিশু উদ্যানের দুর্গা পুজো এই বছর ১৪ তম বর্ষে পদার্পন করলো। পুজোর পরিবেশের সাথে নজরকাড়া দুর্গা মায়ের মৃন্ময়ী মূর্তি। সদস্যদের সারা বছরের অক্লান্ত পরিশ্রমের সুফল হলো ‘দুর্গা মা’ ই যেন এই উদ্যানের এক শিশু সদস্যা। এই পুজো প্রসঙ্গে এই উদ্যানের সম্পাদক গৌতম তালুকদার জানালেন, এই পুজোতে একবার যোগদান করলে পারিবারিক পুজোর স্বাদ পাওয়া যাবে বলেই আমার বিশ্বাস। আমাদের সারাবছরের কর্মকাণ্ড কেবলমাত্র দুর্গা পুজোর মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। গত ৮ অক্টোবর দুর্গাপুজোর তৃতীয়ায় আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের দিনে এই উদ্যানের শিক্ষার্থী শিশু কিশোর ও কিশোরীরা অত্যন্ত নিপুণভাবে নাচ, গান, আবৃত্তি ও কবিতা পাঠ করে উপস্থিত দর্শকদের মুগ্ধ করে দেয়। এই পুজোকে কেন্দ্র করে এই দিনই ২৯ জন সম্মানীয় শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এই বছর যে হেতু করোনা অতিমারী প্রভাবের জন্য শিক্ষক দিবসে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা সম্ভবপর হয়নি সেই কারণ বশতঃ এই উদ্বোধনের দিনটি কে বেছে নেওয়া হয় শিক্ষকদের সন্মান জানানোর জন্য। এ ছাড়াও আমরা করোনা কালীন সময়ে অঙ্কন বিভাগের ৩০০জন প্রতিযোগীদের বাড়িতে বসেই ছবি এঁকে তাদের অভিবাবকদের হাত দিয়ে আমাদের দপ্তরে পাঠাতে বলে ছিলাম এবং সেই ছবির মধ্যে থেকে ৯০ টি ছবি চূড়ান্ত পর্যায়ে বাছাই করে বিভিন্ন বিভাগে বিজয়ীদের পুরষ্কৃত করা হয়। বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার স্বরূপ বই তুলে দেওয়া হয়। গত সপ্তমীর দিন থেকে প্রতিদিন শিক্ষার্থীরা তাদের বাবা ও মায়ের সাথে এসে ভোগ প্রসাদ একসাথে বসে খাচ্ছেন। দুই বেলাতেই ভোগ খাওয়ার ব্যবস্থা থাকছে। আজ নবমীর দিনে নানা পদ সহযোগে আমিষ খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে এই উদ্যান চত্বরে। আজ বহু বিশিষ্ট অতিথি সহ কয়েকশো সাধারণ মানুষ একই সাথে আমিষ খাবার খাবেন। বহু বছর ধরেই এই নবমীর দিনে আমাদের এই পরম্পরা জারি আছে। আগামীকাল মহা দশমীর দিনে সন্ধ্যাবেলায় আমাদের বিধান শিশু উদ্যানের জলাশয়ে দেবীর মৃন্ময়ী মূর্তির বিসর্জন দেওয়া হবে। তারপর প্রনাম কোলাকুলি ও মিষ্টিমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *